শুক্রবার, ১৪ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

দুঃস্থদের বাড়িতে শুকনো খাবার পৌঁছে দিলেন স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সদস্যরা

News Sundarban.com :
এপ্রিল ১২, ২০২০
news-image

ক্যানিং -সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে যেকোন ধরনের উন্নয়ণমূখী কাজের পরিকল্পনা নিয়ে কয়েকজন যুবক তৈরী করেছিলেন এক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা।জীবনতলা থানার মঠেরদিঘী পল্লিসেবা সদন স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সদস্যরা দীর্ঘদিন যাবৎ এলাকায় বিভিন্ন ধরণের উন্নয়ণের কাজকর্ম করে চলেছে। ইদানিং করোনা ভাইরাস নিয়ে দেশের মধ্যে জাতীয় মহাবিপর্যয় শুরু হয়।চালু হয় লকডাউনও। সরকারের সেই নির্দেশ মেনে সংস্থার সকল সদস্য কাজকর্ম লাটে তুলে দিয়ে ঘরের মধ্যে আবদ্ধ থেকে দেশ কে করোনা ভাইরাস প্রতিহত করার কাজে সামিল হয়। লকডাউন শুরু হওয়ায় বেশ কিছু দরিদ্র অসহায় দুঃস্থ মানুষজন পড়ে যায় মহাসংকটে।বিশেষ করে নিত্য খেটে খাওয়া মানুষজনের খাদ্যের ভাঁড়ারে পড়ে টান। আর এমন মহামারী বিপর্যয় থেকে সাধারণ দরিদ্র মানুষজন যাতে করে অনাহারে না থাকেন তার জন্য মঠেরদিঘী সেবা সদনের সদস্য খোকন মন্ডল, অর্পন দাস, তাপস দাস, কমল বিশ্বাস, সুরজিৎ দেবনাথ, গৌরাঙ্গ মন্ডল, গৌর নস্কর,অতনু রায়, পিনাকী সরদার পঙ্কজ মন্ডলরা নিজেদের মধ্যে পর্যাপ্ত পরিমাণ টাকা চাঁদা তুলে বাজার থেকে শুকনো খাদ্য সামগ্রী কেনেন। এরপর শনিবার বিকালে সকল বন্ধুরা মিলিত ভাবে বেরিয়ে পড়ে ক্যানিং ব্লকের বিভিন্ন আদিবাসী অধুষ্যিত ও দরিদ্র এলাকায়। সেখানে প্রতিটি বাড়িতে বাড়িতে উপস্থিত হয়ে শুকনো খাদ্যসামগ্রী তুলেদেন দরিদ্র পরিবারের হাতে ।এদিন ক্যানিং ১ ব্লকের দুমকি,জয়রামখালি,নলিয়াখালি,হেড়োভাঙ্গা,ডাবু সহ অন্যান্য প্রত্যন্ত এলাকায় গিয়ে প্রায় ১৫০ টি পরিবারের হাতে এই শুকনো খাদ্য সামগ্রী তুলেদেন।

সংস্থার সদস্য খোকন মন্ডল বলেন “আমি নিজেই সত্তর শংতাশ প্রতিবন্ধী।চলাফেরা করতে অসুবিধা হয়। কিন্তু করোনা মহামারীতে যাতে করে কেউ অনাহারে না থাকে তারজন্য আমাদের এই মিলিত উদ্যোগ।”
প্রতিবন্ধী সমাজসেবী খোকন মন্ডল ও তাঁর বন্ধুবান্ধদের এমন উদ্যোগ কে ভূয়সী প্রশংসা করেছেন শিক্ষক স্বরুপ ঘোষ,যাদব চন্দ্র বৈদ্য,সুন্দরবনের বিশিষ্ট সমাজসেবী ফারুক আহমেদ সরদার সহ অন্যান্য বিশিষ্টজনেরা।তাঁরা আরো বলেন খোকনের মতো আরো সচেতন নাগরিকরা এমন মহামারী কে প্রতিহত করার জন্য এগিয়ে আসলে দেশের ও দশের মঙ্গল হবে।”