শনিবার, ২৫শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

নরম মনোভাব প্রশাসনের,লকডাউনের নামে চলছে প্রহসন

News Sundarban.com :
এপ্রিল ৪, ২০২০
news-image

 

সুভাষ চন্দ্র দাশ,ক্যানিং -নরম মনোভাব প্রশাসনের,লকডাউনের নামে ক্যানিং মহকুমা এলাকার বিভিন্ন এলাকায় চলছে প্রহসন। করোনা নিয়ে ধারাবাহিক ভাবে সতর্ক বার্তাতে ও মিলছে ফল।সরকারি নির্দেশ কে উপেক্ষা করে লকডাউন কে পাত্তা না দিয়েই যত্রতত্র ঘোরাফেরা করা কে নিয়ম করে ফেলেছে কিছু মানুষজন।কিছু কিছু এলাকায় লকডাউন হলেও বেশ কিছু এলাকা লকডাউন কে উপেক্ষা করে কিছু বেয়াদপ মানুষজন রাস্তায়,বাজার হাটে জলোটা করে ঘোরাফেরা করছে। পাশাপাশি ভীড় জমিয়ে গল্পগুজব আড্ডায় মশগুল।আবার সরকারি নির্দেশকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে রাস্তায় দেদার ছুটছে অটো টোটো থেকে বাইক মোটর চালিত ইঞ্জিন ভ্যানও।
দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার ক্যানিং মহকুমার খোদ ক্যানিংয়ে এমন নিয়ম ভাঙার খেলা শুরু হয়েছে বেশ কয়েকদিন যাবৎ।পাশাপাশি বাসন্তী,ক্যানিং,বেতবেড়িয়া ,তালদি,আমঝাড়া,সোনাখালি,ভাঙনখালি এলাকাতে ক্রমশ এমনই প্রবণতা বেড়েই চলেছে।শনিবার সকালে এলাকার বিভিন্ন বাজার হাটে ছিল উপচে পড়া ভীড়। তেমন রাস্তার বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখাগেছে টোটো,অটো এবং মোটর চালিত ইঞ্জিন ভ্যানও।
স্থানীয় সাধারণ মানুষজনের ধারণা শুরুতেই প্রশাসন অত্যন্ত সজাগ হয়েই লকডাউন কে সফল করতে পেরেছিলেন। অভিযোগ প্রশাসন কিছুটা নরম মনোভাব নেওয়ায় এমনটাই ঘটছে।বেতবেড়িয়া ষ্টেশন সংলগ্ন এলাকাতেই যাত্রী পরিবহনের জন্য দাঁড়িয়ে রয়েছে অটো।তালদি স্টেশন সংলগ্ন বাজার এলাকায় চলে মেলাপার্বনের মতো লোকজনের জমায়েত।ক্যানিং বাজারেও একই অবস্থা।অন্যদিকে বেশকিছু মানুষজন ক্যানিং ১ বিডিও অফিসের সামনেই সামাজিক দুরত্ব বজায় না রেখেই গাদাগাদি করে দাঁড়িয়েছেন ত্রাণের অপেক্ষায়।আর এমনই পরিস্থিতিতে ঘরে থাকা মানুষজনের প্রশ্ন এমনটাই চলতে থাকলে ভয়াবহ পরিস্থিতি তৈরী হবে খুব বেশি সময় লাগবে না।
এলাকার বুলু মন্ডল,সিকান্দর সাহানী,তারক দাস দের দাবী প্রশাসন কঠোর মনোভাব নিলেই বেয়াদপদের দাপাদাপি কমবে। তা না হলে করোনা কে প্রতিহত করা সম্ভব নয়।