শনিবার, ১৮ই মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

কালোবাজারী রুখতে  যুবতৃণমূলের একাধিক কর্মী ক্যানিং বাজারে অভিযান চালালো

News Sundarban.com :
মার্চ ২৩, ২০২০
news-image

 

সুভাষ চন্দ্র দাশ,ক্যানিং -করোনা নিয়ে সর্বত্র চলচে ত্রাহি ত্রাহি বর। সেই আতঙ্কের জেরে করোনা ভাইরাস রুখতে উঠেপড়ে লেগেছে দেশ তথা রাজ্যসকারও।ইতিমধ্যে দেশের সর্বত্র বন্ধ হয়ে গিয়েছি রেল যোগাযোগ পরিষেবা। সোমবার বিকাল ৫ টা থেকে দেশের অন্যান্য রাজ্যের ন্যায় পশ্চিমবঙ্গে শুরু হবে লকডাউন পক্রিয়া।আর এই পক্রিয়ার জেরে বেশ কিছু কালোবাজারী অতিরিক্ত মুনাফা অর্জনের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্য দ্রব্যসহ অন্যান্য জিনিসপত্রের দাম হাঁকাচ্ছেন আকাশ ছোঁয়া।
একদিকে করোনা ভাইরাস আর অপরদিকে খাদ্যদ্রব্যের মূল্যবৃদ্ধি আকাশ ছোঁয়া হওয়ায় মরতে বসেছে সাধারণ মধ্যবিত্ত মানুষজন।আলু যেখানে ১৫ টাকা কিলো বিক্রি হচ্ছিল ,সেখানে করোনার থাবায় একধাক্কায় ২৫ টাকায় ছুঁয়েছে।পাশাপাশি খাসির মাংস ৫০০ থেকে ৭৫০ টাকা,সরষে তেল ১০০ থেকে ১৩০ টাকা,মুসারী ডাল ৬৫ থেকে একলাফে পৌঁছে গিয়েছে ৯০ এর ঘরে।পোল্ট্রী মুরগীর ডিম ৪ টাকা প্রতিপিস থেকে ৬ টাকায় পৌঁচেছে।
আর এমনই খবর পেয়েই ক্যানিং ১ ব্লক যুবতৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি পরেশ রাম দাসের নেতৃত্বে একদল যুবতৃণমূল কংগ্রেস কর্মী সমর্থকরা ক্যানিং বাজারে কালোবাজারী রুখতে বিশেষ অভিযান চালালো। সোমবার সকালে ক্যানিং বাজারের বিভিন্ন দোকানে গিয়ে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম যাতে না বাড়ে তার জন্য তারজন্য নির্দিষ্ট মূল্য বেঁধে দেন।পাশাপাশি ব্যবসায়ীদের কে সতর্ক করে এ ও জানিয়ে দেওয়া হয়, যদি কোন প্রকার নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস পত্রের দাম বাড়ানো হয় তাহলে প্রশাসন দিয়ে আইনগত ভাবে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
এদিন এই কালোবাজারী রুখতে অভিযানে সামিল হয়েছিলেন মাতলা ১ গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান হরেন ঘোড়ুই,উপপ্রধান প্রদীপ দাস সহ অন্যান্যরা