সোমবার, ২২শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

সহপাঠীদের  জ্বালা থেকে বাঁচতে জীবনের ইতি টানতে চায় শিশুটি

News Sundarban.com :
ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০২০
news-image

কাডেন বেলস, বয়স মাত্র নয় বছর। কিন্তু বয়সের তুলনায় সে তেমন বাড়েনি। এ নিয়ে সহপাঠীরা তাকে ‘বামন’ বলে খ্যাপায়। বুলিংয়ের শিকার শিশুটি সহপাঠীদের এই জ্বালা থেকে বাঁচতে জীবনের ইতি টানতে চায়।অস্ট্রেলিয়ায় এই শিশুটির মা ইয়াররাকা বেলস ছেলের কান্নার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করেছেন। এরপর ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছে। ওই ভিডিওতে দেখা গেছে, কাডেন অনবরত কাঁদছে। স্কুলে বুলিংয়ের শিকার হয়েই তার এই কান্না। গত মঙ্গলবার ছেলের কান্নার ছয় মিনিটের ভিডিওটি পোস্ট করে ইয়াররাকা বেলস বলেছেন, আমি মাত্রই ছেলেকে স্কুল থেকে নিয়ে ফিরছি। আজকেও সে বুলিংয়ের শিকার হয়েছে। আমি প্রিন্সিপালকে ঘটনাটি জানিয়েছি। আমি সবাইকে জানাতে চাই, দেখুন বুলিং এই কাজটাই করে। তিনি এও জানিয়েছেন, বুলিংয়ের শিকার কাডেন আর বাঁচতে চায় না। খবর বিবিসির এ ঘটনার পর কাডেনের পক্ষে তহবিল গঠন করা শুরু হয়েছে। কাডেনকে ডিজনিল্যান্ডে পাঠানোর জন্য ইন্টারনেটের দুনিয়ায় তহবিল গঠনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। গোফান্ডমি নামের ওই পেজে মোট ১০ হাজার ডলার সংগ্রহের লক্ষ্য ঠিক করা হয়েছে। এরইমধ্যে তাতে তিন লাখ ডলারের মতো উঠে গেছে।এছাড়া সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বুলিংয়ের প্রতিবাদে অস্ট্রেলিয়ার তারকারা সরব হয়েছেন। অভিনেতা হিউ জ্যাকম্যান একটি ভিডিওবার্তা পোস্ট করে বলেছেন, ‘কাডেন, তুমি অন্য অনেকের চেয়ে অনেক বেশি শক্তিশালী।’  পরে এক সংবাদ সম্মেলনে ইয়াররাকা বলেছেন, সামাজিক সচেতনতা সৃষ্টির জন্য আমি ছেলের কান্নার ভিডিওটি পোস্ট করেছি। তিনি বলেন, বুলিংয়ের কারণে আমরা প্রতিদিন স্বজনদের হারাচ্ছি। বুলিংয়ের মধ্য দিয়ে বৈষম্যের জন্ম হয়, বর্ণবাদের সৃষ্টি হয়। প্রত্যেক মা-বাবার জন্য সন্তান হারানোর ব্যথা সবচেয়ে কষ্টকর। আর এটিই আমার প্রতিদিনের বাস্তবতা।