শনিবার, ২১শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার,বড়সড় সাফল্য পেল বারুইপুর পুলিশ জেলার পুলিশ

News Sundarban.com :
ফেব্রুয়ারি ১২, ২০২০
news-image

ক্যানিং -আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় ধারাবাহিক ভাবে সাফল্য অর্জন করে চলেছে বারুইপুর পুলিশ জেলার পুলিশ।মঙ্গল বার রাতে অভিযান চালিয়ে আবারও বড়সড় সাফল্য পেল। এদিন রাতে গোপন সুত্রে খবর পেয়ে বারুইপুর পুলিশ জেলার স্পেশাল অপারেশান গ্রুপ ও কুলতলি থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী হানা দেয় কুলতলি থানার মেরীগঞ্জ ১ পঞ্চায়েতের ট্যাংরাবিচী হালদার পাড়ার দীনবন্ধু হালদারের বাড়ীতে।সেই সময় দীনবন্ধু ও তার পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা রাতের খাওয়া দাওয়া সেরে ঘুমানোর জন্য তোড়জোড় শুরু করেন। ইতিমধ্যে ভারী বুটের আওয়াজে দীনবন্ধু হালদারের বাড়ীর লোকজন বিপদের সংকেত লক্ষ্য করে পালানোর চেষ্টা করে। কিন্তু বারুইপুর পুলিশ জেলার দুঁদে পুলিশ অফিসারদের চোখে ফাঁকি দিয়ে পালানো সহজ ছিল না। পুলিশ কর্মীরা দীনবন্ধুকে মুহূর্তে ধরে ফেলে। এরপর দীনবন্ধুর বাড়ীতে তল্লাশি অভিযান চালিয়ে একটি ডবল ব্যারেল পাইপ গান,একটি সিঙ্গেল ব্যারেল পাইপগান,১২ বোরের ৪৪ রাউন্ড কার্তুজ,৩০ রাউন্ড পয়েন্ট সেভেন এমএম কার্তুজ,১২ বোরে কার্তুজের ১৩ টি খালি খোল উদ্ধার করে। পাশাপাশি দীনবন্ধু কে গ্রেফতার আরো আগ্নেয়াস্ত্রের হদিশ,কোথায় বিক্রি করতো এবং আর কে বা কারা এই আগ্নেয়াস্ত্র কারবারে জড়িত সে বিষয়ে দীনবন্ধু কে জিঞ্জাসাবাদ তদন্ত শুরু করেছে বারুইপুর পুলিশ জেলার দুঁদে পুলিশ অফিসাররা।পুলিশ সুত্রে জানাগেছে বেশকিছু দিন ধরে বারুইপুর পুলিশ জেলার স্পেশাল অপারেশান গ্রুপের কাছে খবর আসছিল কুলতলি থানার ট্যাংরাবীচি এলাকায় রমরমিয়ে চলছে আগ্নেয়াস্ত্রের কারবার।সেই মতো বারুইপুর পুলিশ জেলার স্পেশাল অপারেশন গ্রুপের ওসি লক্ষ্মীকান্ত বিশ্বাসের নেতৃত্বে স্পেশাল অপারেশান গ্রুপের পুলিশ ও কুলতলি থানার পুলিশ মঙ্গলবার রাতে ট্যাংরাবীচি এলাকায় তল্লাশি অভিযান চালায়।আর এই তল্লাশি অভিযানে বড়সড় সাফল্য মেলে। উদ্ধার হয় ব্যাপক আগ্নেয়াস্ত্র সহ গোলাবারুদ।গ্রেফতার হয় মুল আগ্নেয়াস্ত্র কারবারী দীনবন্ধু হালদার।