শুক্রবার, ২১শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শেষ হল মনসাপুকুর প্রভাতী সংঘের ফুটবল উৎসব

News Sundarban.com :
জানুয়ারি ২১, ২০২০
news-image

নদী-নালা বেষ্টিত অরণ্য ঘেরা সুন্দরবন। বর্তমানে জনসংখ্যা প্রায় ৫০ লক্ষের বেশী।আর সেই দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলার সুন্দরবনের জীবনতলা ব্লকে মনসাপুকুর প্রভাতী সংঘের বৃহত্তম মাঠে বৃহত্তম ফুটবল টুর্নামেন্ট শেষ হল সোমবার ।
গত ১৯ জানুয়ারী প্রভাতী সংঘের উদ্যোগে আয়োজিত ষষ্ঠ বর্ষের ১৬ দলের নকআউট ফুটবল টুর্নামেন্টের সূচনা করেছিলেন ক্যানিং পূর্বের বিধায়ক সওকাত মোল্ল্যা।সুচনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট সমাজসেবী আবুল কাশেম সরদার,ফকির রাজ্জাক সরদার,সফিউদ্দিন সরদার,ফজলু রহমান মোল্ল্যা সহ অন্যান্য বিশিষ্টরা। ষষ্ট বর্ষেরএই ফুটবল টুর্ণামেন্টের ফাইনালে মুখোমুখি হয় সওকাত মোল্ল্যা একাদশ ও শাসন বালক সংঘ।ফাইনালে নির্ধারিত সময়ে উভয় দল ২-২ গোলে শেষ করে। পরবর্তি সময়ে ট্রাইব্রেকারেও ৩-৩ গোলে ড্র হয়। অবশেষে ফুটবল প্রেমীমানুষের আনন্দঘন বিশেষ উত্তেজনায় টস এ সওকাত মোল্ল্যা একাদশ চ্যাম্পিয়ান হয়।
একঝাঁক দেশী বিদেশী খেলোয়াড়ের উপস্থিতিতে টুর্নামেন্টের সেরা নির্বাচিত হন সওকাত মোল্ল্যা একাদশের সফিক। অন্যদিকে সমগ্র টুর্ণামেন্টে হ্যাট্রিক সহ ৭ টি গোল করে ফাইনালে ম্যান অফ দ্যা ম্যাচ এবং টুর্ণামেন্টে সর্বোচ্চ গোলদাতার সম্মান পায় শাসন বালক সংঘের বিদেশী ফুটবলার ওহিদি।
চ্যাম্পিয়ান ও রানার্স দলের হাতে সুদৃশ্য ট্রফি সহ নগদ সাড়ে তিন লক্ষ ও তিন লক্ষ টাকা তুলেদেন টুর্নামেন্ট অায়োজক কমিটির সদস্যরা।টুর্নামেন্ট কমিটির সম্পাদক ফজলু রহমান মোল্ল্যা বলেন “সুন্দরবনের প্রত্যন্ত দ্বীপ এলাকার ফুটবল প্রেমী মানুষজনের খেলা দেখে অানন্দ উপভোগ করার ইচ্ছা থাকলে ও অর্থনৈতিক কারনে তাঁরা কলকাতায় খেলা দেখতে যেতে পারেন না।এছাড়া প্রত্যন্ত এই গ্রামে তাঁরা যাতে কলকাতার মত মাঠে খেলা দেখে আনন্দ পায় এবং এলাকায় যাতে ভালো ফুটবল খেলোয়াড় তৈরী হয় তার জন্য এই টুর্ণামেন্টের আয়োজন”।
অন্যদিকে টুর্নামেন্ট চলাকালীন শান্তিশৃঙ্খলা ও সম্প্রীতি বজায় রাখার আহ্বান জানিয়ে বারুইপুর পুলিশ জেলার অধিনস্থ ঘুটিয়ারী শরীফ ফাঁড়ীর পুলিশ প্রশাসন ও প্রভাতী সংঘের মধ্যে একটি প্রীতিফুটবল টুর্ণামেন্ট অনুষ্ঠিত হয়।প্রীতি ম্যাচে দাপটের সাথে খেলে গোল করেন ঘুটিয়ারী পুলিশ ফাঁড়ীর ওসি সমরেশ ঘোষ। যদিও প্রাীতি ম্যাচটি ড্র হয়। দুইদিন ধরে চলা এই ফুটবল টুর্ণামেন্টে মহিলাদের উপস্থিতি ছিল নজর কাড়া,সাথে সাথে সুন্দরবনের বিভিন্ন প্রান্তের প্রায় হাজার দশেক ফুটবলপ্রেমী দর্শক উপস্থিত ছিলেন।