মঙ্গলবার, ১৬ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

বৃহস্পতিবার সকালে নিজের কোয়াটারে আত্মঘাতী ফ্রেজারগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক

News Sundarban.com :
ডিসেম্বর ২৬, ২০১৯
news-image

তাহরিমা খাতুন, ফ্রেজারগঞ্জ : বৃহস্পতিবার সকালে নিজের কোয়াটারে আত্মঘাতী হলেন ফ্রেজারগঞ্জ উপকূল থানার ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক গৌতম বিশ্বাস। এই ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। সূত্রের খবর, গতকাল ছিল ২৫ শে ডিসেম্বর বড়দিন। এই দিনে বকখালি চত্বরে পর্যটকদের পর্যাপ্ত ভিড় ছিল। যাতে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে তার জন্য তিনি সারাদিন তদারকিতে ছিলেন। সমস্ত দায়িত্ব সামলে রাত্রি আনুমানিক বারোটা নাগাদ তিনি নিজের কোয়াটারে চলে যান। তারপরে তিনি আর বাইরে বের হননি। সকালে ডিউটি রত পুলিশ কর্মীরা সকালে তাকে থানায় আসতে না দেখে প্রথমেই ওনার নাম্বারে ফোন করে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেন। তাতে কোনো উত্তর না পাওয়ায় কর্মীরা প্রথমে তার দরজার কাছে গিয়ে ডাকাডাকি করেন। তাতে কোন সাড়া না মেলায় কর্মীরা দরজা ভেঙে কোয়ার্টারের ভেতরে ঢুকে গলায় ধুতির ফাঁস জড়িয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান। এই ঘটনায় বেশ কিছুটা হতচকিত হয়ে যায় ওই ডিউটিরত পুলিশকর্মীরা। এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ার পাশাপাশি শোকের ছায়া নেমে আসে এলাকায়। বুলবুল ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত ফ্রেজারগঞ্জ, বকখালি, মৌসুনি, বালিয়াড়া সহ সমস্ত ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা গুলোতে ক্ষতিগ্রস্তদের পরিষেবা পৌঁছে দিতে অত্যন্ত নিষ্ঠার সঙ্গে তিনি দায়িত্ব সামলেছেন। স্নেহশীল উদার মানসিকতার এই মানুষটি এলাকার মানুষের কাছে অত্যন্ত জনপ্রিয় ছিলেন। তিনি অত্যন্ত দায়িত্বশীল, কর্তব্য পরায়ন মানুষ ছিলেন বলে পুলিশ কর্মী থেকে শুরু করে স্থানীয়রা জানান। খবর পাওয়া মাত্রই ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন সুন্দরবন পুলিশ জেলার সুপার বৈভব তেওয়ারি, অ্যাডিশনাল এসপি প্রভিণ প্রকাশ, কাকদ্বীপ এসডিপিও অনিল রায় সহ পদাধিকারীরা। তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে কী কারনে এই আত্মঘাতীর ঘটনা ঘটলো তা উদঘাটন করতে তদন্ত শুরু করেছেন। তদন্তের স্বার্থে যে কোয়ার্টারে তিনি আত্মঘাতী হয়েছেন সেই কোয়ার্টারটাকে ব্যারিকেড করে রাখা হয়েছে। মৃত গৌতম বিশ্বাস যে দুটি মোবাইল ফোন ব্যবহার করতেন ও তারা তদন্তের স্বার্থে নিয়েছে সংগ্রহ করে নিয়েছেন। সুন্দরবন পুলিশ জেলা সুপার বৈভব তেওয়ারি জানান, আকস্মিক এই ঘটনায় আমরা মর্মাহত। গতকাল বকখালিতে পর্যটকদের প্রচুর ভিড় ছিল। উনি সমস্ত কিছু দায়িত্ব সহকারে সামলেছেন। কি কারনে এই ঘটনা তা নিয়ে বিভাগীয় তদন্ত শুরু করা হয়েছে। সমস্ত দিক গুলো খতিয়ে দেখা হচ্ছে। আমি নিজে সমস্ত বিষয়টা খতিয়ে দেখছি। গৌতম বাবু যে মোবাইল ফোন দুটি ব্যবহার করতেন তার কললিস্টও পরীক্ষা করা হবে।