শনিবার, ২৫শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

উত্তপ্ত বাসন্তীতে দিদিকে বলো প্রচারে বের হতেই ভাঙন ধরলো বিজেপিতে

News Sundarban.com :
ডিসেম্বর ১১, ২০১৯
news-image

বিশ্লেষণ মজুমদার,বাসন্তী :

একদা অগ্নিগর্ভে উত্তপ্ত দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলার বাসন্তী ব্লক।আর শাসক দলের গোষ্ঠী কোন্দলের সুযোগ নিয়ে ঘোলা জলে মাছ ধরার জন্য বিজেপি তৈরী হচ্ছিল।বাসন্তীর আগুন একটু স্থিতবস্থা হয়ে শান্তির আবহাওয়া বার্তা তৈরী হতেই দলীয় কর্মী সমর্থকদের কে নিয়ে মঙ্গলবার সকালে দ্বিতীয় দফার দিদিকে বলো জনসংযোগ প্রচার শুরু করলেন বাসন্তী ব্লক তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীসমর্থকরা।মঙ্গলবার সকালে বাসন্তী ব্লকের মূল তৃণমূল কংগ্রেস সংগঠনের নেতা মন্টু ওরফে আব্দুল মান্নান গাজীর নেতৃত্বে বাসন্তী ব্লকের জ্যোতিষপুর গ্রাম পঞ্চায়েতে একাধিক গ্রাম পরিক্রমা করে সাধারণ মানুষজনের সাথে জনসংযোগ করে তাদের হাতে দিদি কে বলো ফোন নম্বরের কার্ড তুলে দেন। এর পাশাপাশি এলাকার চাষীদের কাছে গিয়ে বুলবুল ঝড়ে কি কি ক্ষতি হয়েছে সেগুলি চাষীদের কাছ থেকে শুনে লিপিবদ্ধ করেন এবং মা -মাটি-মানুষের মমতা ব্যানার্জীর সরকার আপনাদের পাশে রয়েছে বলে চাষীদের কে আশাভরসা দেন তৃণমূল নেতৃত্ব।সারাদিন ব্যস্ততার মধ্যে জনসংযোগ সেরে এলাকার বাসিন্দাদের নিয়ে এক চায়ের আসরে তৃণমূল নেতৃত্ব যখন সকলের সাথে আলাপ আলোচনা ব্যস্ত ,ঠিক সেই মুহূর্তে স্থানীয় জ্যোতিষপুর গ্রামপঞ্চায়েতের  দুই নির্বাচিত বিজেপি পঞ্চায়েত সদস্য তৃণমূলে যোগদান করা ইচ্ছা প্রকাশ করেন।

যেমন কথা তেমন কাজ। মুহূর্তে দিদিকে বলো জনসংযোগের আলাপ আলোচনা বন্ধ করে দিয়ে বিজেপির  দুই নির্বাচিত গ্রামপঞ্চায়েত সদস্য পদ্মারানী মন্ডল ও মৃত্যুঞ্জয় মন্ডলের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেন বাসন্তী ব্লকে মূল তৃণমূল সংগঠনের নেতা মন্টু ওরফে আব্দুল মানান গাজী। এছাড়াও এদিন উপস্থিত ছিলেন বাসন্তী পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি কামাল উদ্দিন লস্কর,স্বপন পট্টনায়েক,দিলীপ নস্কর সহ অন্যান্য তৃণমূল নেতৃত্ব।

এদিকে বিজেপি ছেড়ে সদ্য তৃণমূলে যোগদিয়ে পদ্মারানী মন্ডল ও মৃত্যুঞ্জয় মন্ডল’রা বলে “বিজেপি দলে কোন রকম স্বাধীনতা নেই।তারপর অসাধু লোকের রমরমা। জন সাধারনের ভোটে নির্বাচিত হয়ে জনসাধারণের জন্য কাজ করতে পারছিলাম না। যার জন্য মমতা ব্যানার্জী মতাদর্শে বিশ্বাসী হয়ে তৃণমূলের ঝান্ডা হাতে তুলে নিয়েছি”।