বৃহস্পতিবার, ১৮ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

অসহায় বাঘে আক্রান্ত পরিবারে পাশে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিল গ্রাম পঞ্চায়েত

News Sundarban.com :
ডিসেম্বর ১১, ২০১৯
news-image

গোসাবা : দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলার গোসাবা ব্লকের প্রত্যন্ত কুমিরমারী গ্রামপঞ্চায়েতের মৃধা পাড়ার বাসিন্দা প্রভাস মুন্ডা ও তার চার সঙ্গী বিষ্টু কয়াল,সন্ন্যাসী কয়াল,গৌরপদ মন্ডল,রাজকুমার সরদারদের কে নিয়ে গত ৭ ডিসেম্বর সুন্দরবনের জঙ্গলে হরিণভাঙা নদীতে মাছ,কাঁকড়া ধরতে গিয়েছিলেন।৮ ডিসেম্বর বিকাল চারটে নাগাদ সকলে যখন মাছকাঁকড়া ধরতে ব্যস্ত ,সেই মুহূর্তে আচমকা জঙ্গল থেকে একটি বাঘ বেরিয়ে এসে প্রভাস মুন্ডার ঘাড়ে কামড় বসিয়ে সুন্দরবনের গভীর জঙ্গলে টেনে নিয়ে চলে যায়।সঙ্গীরা চেষ্টা করলেও বাঘের মুখ থেকে রক্ষা করতে পারেনি সঙ্গী প্রভাস কে।
এরপর তারা বিষয়টি বনবিভাগের কর্মীদের গোচরে আনেন।
দারিদ্র সীমার নীচে বসবাসকারী প্রভাস মুন্ডা ছিলেন পরিবারের একমাত্র উপার্জনকারী। আর বাঘের আক্রমণে নিখোঁজ হয়ে গেলে অসহায় হয়ে পড়ে আদিবাসী পরিবার টি।প্রভাস বাবুর স্ত্রী মন্দিরা মুন্ডা,বৃদ্ধা শাশুড়ী সুধা মুন্ডা ও তার দুই শিশু সন্তান প্রদীপ ও বৈশাখী কে নিয়ে অসহায় হয়ে পড়েন।
দরিদ্র পরিবার টি অসহায় হয়ে বেশ কয়েকদিন শীতে জবুথবু হয়ে অর্ধাহারে কখনও বা অনাহারে দিন কাটাচ্ছিলেন।
এমন অসহায় পরিবারের কথা স্থানীয় কুমিরমারী গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান দেবাশীষ মন্ডলের কানে পৌঁছালে ,তিনি কাকবিলম্ব না করে মঙ্গলবার দুপুরে দরিদ্র অসহায় পরিবারের পাশে দাঁড়িয়ে চাল,পরিবারের আসবাবপত্র,পরিবারের সকলের জন্য শীত বস্ত্র ও নগদ অর্থ প্রদান করে অসহায় পরিবারের পাশে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন।
কুমিরমারী গ্রামপঞ্চায়েত প্রধান দেবাশীষ মন্ডল জানিয়েছেন “দরিদ্র অসহায় পরিবার টির একমাত্র উপার্জনকারী প্রভাস মুন্ডা সুন্দরবন জঙ্গলে মাছ কাঁকড়া ধরতে গিয়ে নিখোঁজ হয়েছেন।অসহায় পরিবার টি অনাহারে দিন কাটাচ্ছিল। খবর পেয়ে সাময়িক ভাবে সাহায্য করা হয়েছে। আগামী দিয়ে অসহায় পরিবার টি যাতে করে সরকারী ভাবে আরো বেশী করে সাহায্য সহযোগিতা পায়, তার জন্য গ্রামপঞ্চায়েত দফতর থেকে সেই ব্যবস্থা করা হবে। ”
পঞ্চায়েত প্রধানের এমন মানবিক কর্তব্যের জন্য প্রভাস বাবুর স্ত্রী মন্দিরা মুন্ডা বলেন “ বৃদ্ধা শাশুড়ী আর দুই শিশু সন্তান কে নিয়ে মৃত্যুর অপেক্ষায় পথে বসেছিলাম। প্রধানের সাহায্যে আজ বাঁচার ভরসা পেলাম। ”