শনিবার, ২০শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শীতের শুরুতেই লেপ,তোষক তৈরীতে ব্যস্ত ভিন রাজ্যের ধুনুরীর দল

News Sundarban.com :
নভেম্বর ২৪, ২০১৯
news-image

শীতের আগমনের আগেই জোর ধাক্কা দিয়ে গেছে বুলবুল। সেই ধাক্কা কাটিয়ে শীতের আগমন শুরু হয়েছে সাময়িক ভাবে।নভেম্বর মাসের মাঝামাঝিতে শীতের আগমনে লেপ,তোষক সহ শীতের সামগ্রী তৈরীর জন্য বিহার,ঝাড়খন্ড,কাশ্মীর সহ ভিন রাজ্য থেকে দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলার বিভিন্ন প্রান্তে ঝাঁকে ঝাঁকে ধুনুরীর দল হাজীর হয়েছে। দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলার গোসাবা,বাসন্তী,জীবনতলা,পাথরপ্রতিমা,নামখানা,বারুইপুর,কুলতলি সহ বিভিন্ন এলাকার সাধারণ বাসিন্দারা তাদের কে দিয়ে শীতের নতুন আসবাব কিংবা পুরাতন লেপ,তোষক নতুন ভাবে তৈরী করতে ব্যস্ত।
উল্লেখ্য এই ধুনুরীর দল ভিন রাজ্য থেকে এই পশ্চিমবঙ্গে আসেন নভেম্বর মাসে,ফিরে যায় ফেব্রুয়ারী মাসের শেষ লগ্নে।আবার শীতের মরশুমের জন্য একটি বছরের অপেক্ষায় থাকেন অজিত,বিজয়,সাহানী,যাদব,মিন্টু প্রসাদের মতো ভিনরাজ্যের ধুনুরীরা।
অন্যদিকে শীতের সময় এই ভিনরাজ্যের ধুনুরী কিংবা কাশ্মীরীদের কাছে শীতের আসবাব তৈরী করা হোক বা কেনার জন্য অধীর আপেক্ষায় থাকেন আপামোর বাঙালী। অপেক্ষা থাকার কারণ হিসাবে কালীদাস,দেবনাথ,দেবাশীষ বৈরাগী,কালীপদ সরদার কিংবা প্রত্যন্ত সুন্দরবনের বাসিন্দা আকবর সেখরা বলেন “প্রকৃত পক্ষে শীতের লেপ,তোষক তৈরীতে পারদর্শী বিহার,ঝাড়খন্ড,উত্তরপ্রদেশ কিংবা কাশ্মীরীরা। তারপর কাশ্মীরের শাল,মাফলার,জ্যাকেট এর গুণমান খুব ভালো হয়। যার জন্য ভিন রাজ্যের ধুনুরী কিংবা শাল বিক্রেতাদের জন্য অপেক্ষায় থাকতে হয়।”