সোমবার, ২২শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

বেহাল রাস্তা নাজেহাল সাধারণ পথচারী,স্কুল ছাত্রছাত্রী থেকে গাড়ী চালকরা

News Sundarban.com :
নভেম্বর ১৯, ২০১৯
news-image

দীর্ঘদিন ধরেই যাতায়াতের রাস্তার অবস্থা বেহাল। প্রশাসনের বিভিন্ন দরজায় কড়া নাড়া দিয়েও লাভের লাভ কোন কিছুই হয়নি। বাসন্তীর থানার কলতলা থেকে চুনাখালি বাসষ্ট্যান্ড পর্যন্ত প্রায় ১৫ কিলোমিটার রাস্তার অবস্থা দীর্ঘদিন ধরেই বেহাল।এই রাস্তায় চুনাখালী, ফুলমালঞ্চ,রামচন্দ্র খালি ও বাসন্তী গ্রাম পঞ্চায়েতের ৭-৮টি স্কুলের কয়েক হাজার ছাত্রছাত্রী সহ এলাকার বাসিন্দারা যাতায়াত করেন।বিগত একবছর ধরে রাস্তার কোন সংস্কার না হওয়ায় রাস্তায় বিশাল বিশাল গর্ত তৈরী হয়ে বেরিয়ে পড়েছে মাটি।বিশেষ করে বৃষ্টি হলেই সেই সমস্ত খানাখন্দে জল জমে যায়। আর সেই জমা জলের উপর দিয়ে গাড়ী চলাচলের সময় রাস্তার নোংরা জমা জল ছিটিয়ে লাগে ছাত্র ছাত্রী থেকে সাধারণ মানুষের পোশাকে।পাশাপাশি বাড়ছে ঝুঁকিপূর্ণ বিপদও।এই রাস্তা দিয়ে ইঞ্জিন চালিত মোটর ভ্যান,অটো,টোটো,বাস,ম্যাজিক গাড়ী চলাচল করে। রাস্তার অবস্থা বেহাল হওয়ায় ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে গাড়ী সহ গাড়ীর যন্ত্রাংশ।

টোটো চালক অজয় রায়,সইদুল মোল্ল্যা বলেন “রাস্তার অবস্থা জঘন্য,আর রাস্তা খারাপ হওয়ার জন্য গাড়ীর ক্ষতি হচ্ছে আবার দুর্ঘটনার সম্মূখীনও হতে হচ্ছে।”

অন্যদিকে স্কুল পড়ুয়া আজমীরা খাতুন,অলোক মন্ডল,নমিতা বর্মন,দেব সরদার’রা বলে “রাস্তার খারাপ হওয়ায় স্কুলে যাওয়ার সময় সমস্যায় পড়তে । আবার রাস্তার খানাখন্দে সাইকেল পড়ে গিয়ে ক্ষতি হচ্ছে”।

স্থানীয় বাসিন্দা অনিল সরদার,মোমিন খাতুন’রা বলেন “দীর্ঘদিন ধরে রাস্তার এমন বেহাল দশা চলছে,কারোর কোন হেলদোল নেই। আর সমস্যা পোহাচ্ছে সাধারণ মানুষজন।”

রাস্তা খারাপের কথা স্বীকার করে বাসন্তী পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি কামালউদ্দিন লস্কর বলেন “রাস্তা টি ভালোই ছিল,এই বর্ষায় ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। যাতে করে খুব শীঘ্রই রাস্তার সংস্কার হয় সে জন্য সড়ক ও পূর্ত বিভাগের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ কে জানানো হয়েছে। আশা করা যায় খুব শীঘ্রই রাস্তার সংস্কারের কাজ শুরু হবে।”