শুক্রবার, ১৯শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

ইনিংস হারের শঙ্কা নিয়ে লড়ছে বাংলাদেশ

News Sundarban.com :
নভেম্বর ১৯, ২০১৯
news-image

ইনিংস হারের শঙ্কা নিয়ে লড়ছে বাংলাদেশ। জাঁকিয়ে বসেছেন ভারতীয় বোলাররা। প্রথম ইনিংসের মতো দ্বিতীয় ইনিংসেও মহম্মদ শামিকে খেলতে গিয়ে হিমশিম খেলেন বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। ইন্দৌর টেস্টের তৃতীয় দিন সকালে ডিক্লেয়ার ঘোষণা করে ভারত। ৩৪৩ রানের লিড নিয়ে। এর পর দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিং করতে নেমে শুরু থেকেই ধুঁকতে থাকে বাংলাদেশ। মাত্র ৪৪ রানে তারা চার উইকেট হারায়। বাংলাদেশের দুই ওপেনার শাদমান ইসলাম ও ইমরুল কায়েস প্রথম ইনিংসের মতে এবারও ব্যর্থ। প্রথম ইনিংসেও দুজনে মাত্র ছয় রান করে আউট হয়েছিলেন। এবারও তাই। ক্যাপ্টেন মোমিনুল হকও দলকে বাঁচাতে পারলেন না। মাত্র সাত রান করে প্যাভিলিয়নে ফিরলেন তিনি।

বাংলাদেশের দুই ভরসার মুখ এখন লিটন দাস ও মুশফিকুর রহিম। এই দুজনের হাতেই এখন বাংলাদেশের ভাগ্য ঝুলছে। এই দুজনের লম্বা ইনিংস এখন বাংলাদেশকে ইনিংসে হারের হাত থেকে বাঁচাতে পারে। তবে লিটন ও মুশিফকুরকে ক্রগামত বিরক্ত করে চলেছেন ইশান্ত, সামিরা। মুশফিকুর অবশ্য একবার জীবন পেয়েছেন। মাত্র চার রানের মাথায় তাঁর ক্যাচ পড়ে। না হলে আরও সমস্যায় পড়তে পারত বাংলাদেশ। এখন দেখার কতক্ষণ এই দুজন ভারতীয় বোলারদের আগুনে বোলিং সামলে ইনিংস টেনে নিয়ে যেতে পারেন! তৃতীয় দিন আর ব্যাটিং করেন ভারত। সকালেই ইনিংস ডিক্লেয়ার করে দেন কোহলি। এর পরই প্রথম ইনিংসের পুনরাবৃত্তি করেন বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা।

প্রথম ইনিংসে মাত্র ১৫০ রানে গুটিয়ে গিয়েছিল বাংলাদেশ। এর পর ভারতীয় দল ৪৯৩ রান করে ডিক্লেয়ার করে। মায়াঙ্ক আগরওয়াল ডাবল সেঞ্চুরি করেন। চেতেশ্বর পুজারা, অজিঙ্ক রাহানে ও রবীন্দ্র জাদেজা হাফ সেঞ্চুরি করেন। ঋদ্ধিমান সাহা অবশ্য এই ম্যাচে রান পাননি। মাত্র ১২ রান করে এবাদত হোসেনের বলে বোল্ড হন বাংলার উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান।