সোমবার, ২২শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

অবসাদ থেকে মুক্তি পেতে মুক বধিরদের বস্ত্র বিতরণ করলে সুন্দরবনের সমাজসেবী

News Sundarban.com :
অক্টোবর ২৫, ২০১৯
news-image

বিভিন্ন চিন্তাভাবনা নিয়ে একান্ত হতাশ হয়ে পড়ে নিজেকে প্রায় সমাজচ্যুত করে ফেলেছিলেন সুন্দরবনের সমাজসেবী তথা কবি ফারুক আহমেদ সরদার। ইদানিং বিভিন্ন চিন্তা ভাবনায় মশগুল হয়ে হতাশ হয়ে নিজে থেকেই প্রায় এক সপ্তাহের অধিক গৃহবন্দী অবস্থায় ছিলেন। একাকীত্ব এবং ভারাক্রান্ত বিষাদের মন কে একটু স্বাত্বনা দিয়ে স্বাচ্ছন্দ্য ফিরের পাওয়ার জন্য সিদ্ধান্ত নেন মুকবধীরদের জন্য কিছু একটা করবেন। যেমন চিন্তা তেমনই কাজ।বৃহষ্পতিবার সকাল থেকে বিভিন্ন জায়গায় খোঁজ করে পেয়ে গেলে জনাদশেক মুকবধীরের খোঁখবর।তাদের কে নিয়ে দুপুরে মধ্যাহ্ন ভোজ করিয়ে তাদের হাতে কালীপুজো এবং ভাতৃদ্বিতীয়ার আগেই নতুন বস্ত্র তুলে দিলেন কবি ফারুক আহমেদ সরদার। বৃহষ্পতিবার সারাটা দিন হাসি আনন্দে উপভোগ করলেন মুকবধীরদের সাথে।পথচলিত মানুষজন বৃহষ্পতিবার ক্যানিংয়ের সঞ্জয়পল্লিতে এমন কর্মকান্ড দেখে সঙ্গ দিলেন ফারুক বাবুর সাথে।
সমাজসেবী ফারুক আহমেদ এর একক উদ্যোগে এদিন ক্যানিং মহকুমা এলাকার দশজন মুকবধীরকে নতুন বস্ত্র টুপি এবং মিষ্টিমুখ করানো হয়।
এ বিষয়ে সমাজসেবী ফারুক বলেন “আমাদের ক্যানিং মহকুমা এলাকায় প্রচুর মুকবধীর আছে,যারা অসহায় এবং অবহেলিত আমাদের মত সুস্থ সবল মানুষের মতো ওরা আনন্দ মনের দুঃখ কষ্ট প্রকাশ করতে পারে না। তাই ওদের মুখে হাসি ফোটানোর জন্য বিভিন্ন এলাকা থেকে খুঁজে এনে ব্যক্তিগত প্রচেষ্টায় নতুন সাজে সাজিয়ে এবং মিষ্টি মিষ্টি মুখ করিয়ে ওদের আনন্দে থাকার সহযোগিতা ও ভালোবাসার উৎসাহ দিয়ে উৎসাহিত করার চেষ্টা করেছি মাত্র। আমিও ব্যক্তিগত ভাবেও মানসিক অবসাদে ভুগছি। ওদের সঙ্গে দুঃখ কষ্ট ভাগ করে নিয়ে ভবিষ্যতেও ওদের সুখ-দুঃখের সাথী হয়ে থাকব।”