বুধবার, ২২শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

 প্রয়াত বর্তমান পত্রিকার সম্পাদক শুভা দত্ত

News Sundarban.com :
অক্টোবর ২১, ২০১৯
news-image

 প্রয়াত বর্তমান পত্রিকার সম্পাদক শুভা দত্ত। আজ সকালে জীবনাবসান হয় তাঁর। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৭ বছর। ২০০৮ সালে বর্তমান পত্রিকার সম্পাদক হন শুভা দত্ত। বরুণ সেনগুপ্তের প্রয়াণের পর পত্রিকার সম্পাদনার দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছিলেন তিনি। প্রয়াত সম্পাদককে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে হাসপাতালে যান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আজ সকাল ১০টা ৪২ মিনিটে বাইপাসের ধারে একটি বেসরকারি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন শুভা দত্ত। দীর্ঘদিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন তিনি। গত কয়েকদিন ধরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীনও ছিলেন। প্রিয় সম্পাদকের আকস্মিক প্রয়াণে শোকস্তব্ধ পরিবার থেকে কর্মীরা সবাই। শুভা দত্তের প্রয়াণে গভীর শোকপ্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শোকবার্তায় শুভা দত্তকে ‘শুভাদি’ বলে সম্বোধন করে মুখ্যমন্ত্রী লিখেছেন, “বর্তমান-এর প্রতিষ্ঠাতা বরুণদার পর শুভাদি ছিলেন। তাঁর বলিষ্ঠ নেতৃত্বে বর্তমান আজ এই জায়গায় পৌঁছেছে। শুভাদির সঙ্গে আমার নিয়মিত যোগাযোগ হত। উনি আমাকে খুব স্নেহ করতেন। তাঁর চলে যাওয়া আমার কাছে এক অপূরণীয় ক্ষতি।”

কলকাতাতেই জন্ম ও বেড়ে ওঠা শুভা দত্তের। নির্মলানন্দ সেনগুপ্তের পাঁচ সন্তানের মধ্যে সর্বকনিষ্ঠা ছিলেন শুভা দত্ত। বরুণ সেনগুপ্ত ছিলেন তাঁর প্রিয় মেজদা। তাঁকে নিয়েই লিখেছিলেন ‘মেজদা’ বইটি। ২০০৮ সালের ১৯ জুন বর্তমান-এর প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক বরুণ সেনগুপ্তর প্রয়াণের পর পত্রিকার সম্পূর্ণ দায়িত্বভার কাঁধে নেন শুভা দত্ত। তার আগে থেকেই অবশ্য তিনি পত্রিকার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। সেইসময় বর্তমান-এর মাসিক পত্রিকা ‘সুখী গৃহকোণ’-এর সম্পাদনা করতেন তিনি।

বরুণ সেনগুপ্ত বর্তমান পত্রিকাকে যে উচ্চতায় নিয়ে গিয়েছিলেন, দক্ষতার সঙ্গে সেই সাফল্যকে ধরে রেখেছিলেন শুভা দত্ত। কাগজ, ম্যাগাজিন সহ সামগ্রিক পত্রিকা গোষ্ঠীর আমৃত্যু প্রধান সম্পাদক ছিলেন তিনি। এর পাশাপাশি একটি মন্টেসারি স্কুলের শিক্ষকতাও করেছিলেন শুভা দত্ত।