সোমবার, ২৪শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

মহালয়ার দিন দ্বিতীয়বারের জন্য সিএবি সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব নিলেন সৌরভ

News Sundarban.com :
সেপ্টেম্বর ২৯, ২০১৯
news-image

শনিবার মহালয়ার দিন আনুষ্ঠানিক ভাবে দ্বিতীয়বারের জন্য সিএবি সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব নিলেন প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। তাঁর পদ না বদলালেও এবার সৌরভের দলে একাধিক নতুন মুখ। সচিব অভিষেক ডালমিয়া ছাড়া বাকি সকলেই নতুন। একই সঙ্গে বোর্ডে সিএবি থেকে প্রতিনিধিত্ব করবেন সৌরভই। তবে সিএবি-তে আপাতত ১০ মাসের মেয়াদ মহারাজের। ২০১৪ সালে যুগ্ম সচিব হয়ে সিএবি-তে এসেছিলেন সৌরভ। ২০২০ সালে ৬ বছরের সময়সীমা শেষ হচ্ছে তাঁর। লোধা কমিশনের নিয়ম অনুযায়ী, তারপর কুলিং অফে যেতে হবে সৌরভকে।তদসত্ত্বেও এই ১০ মাসের জন্য কাজ করতে পারবেন বলে তিনি খুশি বলে এদিন জানান সিএবি সভাপতি।

প্রত্যাশা মতোই শনিবার ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অব বেঙ্গলের বিশেষ সাধারণ সভায় বিশেষ চমক দেখা গেল না। নির্বাচন ছাড়াই টিম সৌরভ আগেই ঠিক হয়ে গিয়েছিল।

সভাপতি – সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়।
নতুন সহ-সভাপতি হলেন-  নরেশ ওঝা।
সচিবের দায়িত্বে ছিলেন অভিষেক ডালমিয়া।নতুন যুগ্মসচিব হলেন দেবব্রত দাস ।
নতুন কোষাধ্যক্ষ হলেন দেবাশিস গাঙ্গুলি।
১১ সদস্যের এপেক্স কাউন্সিলও তৈরি করা হয়েছে। যাঁরা বেছে নেবেন নির্বাচক কমিটিকে।
সিএবি-র এথিক্স অফিসার হলেন অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি অলোক চক্রবর্তী।
আর অম্বুডসম্যান হলেন অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি শ্যামল সেন।

সিএবি-র এদিনের বার্ষিক সাধারণ সভায় বিশেষ সদস্যপদ গ্যালারির প্রস্তাব পাশ হয়েছে। ইডেন গার্ডেন্সের এল ব্লকের ১৮০০ আসনে কর্পোরেট বক্সের মতো ভিভিআইপি সুবিধে পাওয়া যাবে মেম্বারশিপ গ্যালারিতে। সিএবি-র অধীনে থাকা সব ক্লাব ও সংস্থাগুলির জন্য ৭টি করে আসন বরাদ্দ থাকবে। ৫ বছরের জন্য প্রতিটি আসন আড়াই লাখ টাকার বিনিময়ে পাওয়া যাবে। এছাড়া সাধারণ ক্রিকেটপ্রেমী মানুষও সিএবি-র সদস্য পদ নিতে পারবেন ওই গ্যালারিতে।

লোধা কমিটির সুপারিশ মেনে আজই প্রথম সিএবি তে বার্ষিক সাধারণ সভা হল। নেতা মন্ত্রীরা কমিটি বা কোনও পদে না থাকলেও বার্ষিক সাধারণ সভায় উপস্থিত থাকতে তাঁদের কোনও বাধা নিষেধ নেই। তাই সিএবি-র এজিএম-এ হাজির ছিলেন রাজ্যের পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়। প্রথমবার সিএবি র বার্ষিক সাধারণ সভায় হাজির ছিলেন জাতীয় দলের হয়ে খেলা বাংলার প্রাক্তন ক্রিকেটাররা। উপস্থিত ছিলেন দীপ দাশগুপ্ত, অশোক মালহোত্রা, উৎপল চ্যাটার্জি, প্রণব রায়রা। বাংলা ক্রিকেটের উন্নতির স্বার্থে এবার তাঁরা পরামর্শ দেবেন।