বৃহস্পতিবার, ১৩ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

এবার পুজোয় তন্তুজ নিয়ে আসছে “কন্যাশ্রী” শাড়ি

News Sundarban.com :
সেপ্টেম্বর ১, ২০১৮
news-image

বাংলা ও বাঙালির সংস্কৃতির সাথে তাঁত শিল্প অঙ্গাঙ্গীভাবে জড়িত। বাংলার শিল্প ও নৈপুণ্যের সমৃদ্ধ ঐতিহ্যকে সুসংগত রেখে, বাংলার তাঁত এবং তাঁতের শাড়ি ফ্যাশন ডিজাইনার্, শৈলী প্রেমী এবং ব্যবহারকারীদের কাছে অতি প্রিয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। সময়ের সাথে সাথে এই গৌরব কিছুটা হলেও ম্লান হয়ে পরে ছিলো কিন্তু পশ্চিমবঙ্গের বর্তমান মুখ্যমন্ত্রীই এই গৌরব আবার পুনরুজ্জীবিত করতে সক্ষম হয়েছেন। গত চার বছরে ব্যপক উন্নতির মুখ দেখেছে বাংলার ছোট, মাঝারি ও ক্ষুদ্র শিল্প। রাজ্যের তাঁত শিল্পকে পুনরুজ্জীবিত করতে গত কয়েক বছরে একাধিক পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। আয়োজন করা হয়েছে তাঁতমেলার। তৈরি হয়েছে তাঁতের হাট। শাড়িতেও এসেছে বৈচিত্র্য। যেমন, এবার পুজোয় তন্তুজ নিয়ে আসছে “কন্যাশ্রী” শাড়ি। এই শাড়িতে থাকবে কন্যাশ্রী প্রকল্পের লোগো ও ভাবনার প্রতিফলন। তবে, শুধু “কন্যাশ্রী”-ই নয়, অপরাজিতা, শঙখবেলা, অনন্যা, চারুলতা ও আলোছায়া নামে পাঁচটি ডিজ়াইনের টাঙ্গাইল শাড়িও বাজারে আনছে তন্তুজ।
শাড়িগুলি সম্পর্কে খুদ্র শিল্প ও সমবায় মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ বলেন, “একসময় তাঁত শিল্প শেষ হতে বসেছিল। কিন্তু, বর্তমান সরকার তাঁতের গৌরব ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করছে। ধুঁকতে থাকা তন্তুজ এখন লাভের ট্র‍্যাকে ফিরেছে। এখন বাজারের অন্য ডিজ়াইনার শাড়ির সঙ্গে পাল্লা দিচ্ছে তন্তুজ। শোরুম ছাড়াও অনলাইনে বেশ ভালো বিক্রি হচ্ছে তাঁতের শাড়ি। পুজোর বাজার ধরতে প্রতিবার নতুন নতুন ডিজ়াইনের শাড়ি আনা হচ্ছে। এবারে যেমন আনা হয়েছে “কন্যাশ্রী” শাড়ি।”
“কন্যাশ্রী” শাড়ির পাড় থেকে আঁচল পর্যন্ত মুখ্যমন্ত্রীর কন্যাশ্রীর ভাবনার ছাপ থাকবে। এছাড়াও, কন্যাশ্রীর লোগো, সবুজ সাথী সাইকেলে গ্রামের মেঠোপথে মেয়েদের স্কুলে যাওয়ার ছবি, বাংলা ভাষার হরফ ও ছড়ার কোলাজ রয়েছে এই শাড়িতে। সল্টলেকে তাঁতের হাটে পাওয়া যাচ্ছে এই শাড়ি। ৫ সেপ্টেম্বর থেকে সল্টলেকের তন্তুজ ভবন, গোলপার্ক, শ্যামবাজার ও লিন্ডসে স্ট্রিটের শোরুমেও পাওয়া যাবে কন্যাশ্রী শাড়ি। পাওয়া যাবে অপরাজিতা, শঙ্খবেলা, অনন্যা, চারুলতা ও আলোছায়া শাড়িও।