রবিবার, ১৬ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

নবান্নে মন্ত্রিসভার বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী কড়া বার্তা জেলার মন্ত্রীদের

News Sundarban.com :
আগস্ট ২৭, ২০১৮
news-image

পঞ্চায়েত বোর্ড গঠন শুরু হতেই শুরু হয়েছে অশান্তি। নিছক অশান্তিই নয়, বোমাবাজি, গুলি থেকে শুরু করে রক্তও ঝরছে। এমনকী মৃত্যুও হয়েছেন পঞ্চায়েতে বোর্ড গঠনের অশান্তিতে। এই বিষয় নিয়েই উদ্বেগ প্রকাশ করেন তিনি। উগ্বিগ্ন মুখ্যমন্ত্রী তাঁর মন্ত্রিসভার সদস্য ও বিধায়কদের সতর্ক করেন। মন্ত্রীদের নির্দেশ দেন যাতে এলাকায় কোনও গণ্ডগোল না হয়, তা দেখতে। সোমবারও পঞ্চায়েতে বোর্ড গঠন নিয়ে হিংসা অব্যাহত। পঞ্চায়েত বোর্ড গঠনের তোড়জোড় শুরু হতেই জেলায় জেলায় গণ্ডগোলের খবরে উদ্বেগ প্রকাশ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার নবান্নে মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর তিনি বিধায়কদের নির্দেশ দিলেন, পঞ্চায়েতের বোর্ড গঠনে যাতে কোনও গণ্ডগোল না হয়, সেদিকে নজর রাখতে। তিনি বলেন, এলাকায় শান্তি বজায় রাখার দায়িত্ব নিতে হবে বিধায়কদেরই।
পুরুলিয়া থেকে উত্তর চব্বিশ পরগনা। আজও পঞ্চায়েতে বোর্ড গঠন ঘিরে দফায় দফায় হিংসা। যার বলি চার জন। এই ঘটনায় ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। নবান্নে মন্ত্রিসভার বৈঠকে জেলার মন্ত্রীদের হিংসা বন্ধের নির্দেশ। একইসঙ্গে মন্ত্রীদের আরও বেশি করে জেলায় দিকে নজর দিতে নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। শ্যামপুরে বিজেপি কর্মীরা তৃণমূল বিধায়ক পুলক রায়কে লক্ষ্য করে ইটবৃষ্টি করে বলে অভিযোগ। আলিপুরদুয়ারেও পঞ্চায়েত বোর্ড গঠন নিয়ে সংঘর্ষ হয়। বেশিরভাগ জায়গাতেই সংঘর্ষ তৃণমূল বনাম বিজেপির মধ্যে। আবার কিছু জায়গায় তৃণমূলের দুই গোষ্ঠীর মধ্যেও সংঘর্ষ বাধে।

মালদহের মানিকচকে তৃণমূল কংগ্রেসের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের অভিযোগ। গোপালপুরে দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষের বলি দুই। হবিবপুরের ঋষিপুরে তৃণমূল-বিজেপির মারপিটে পঞ্চায়েত অফিসে ভাঙচুর। গাজোলে ব্যাহত বোর্ড গঠন প্রক্রিয়া।
দেগঙ্গাতেও তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জের। বিডিওর গাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ। রাজ্যে পঞ্চায়েত বোর্ড গঠনে এই হিংসার ঘটনায় স্বভাবতই অসন্তুষ্ট মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার নবান্নে মন্ত্রিসভার বৈঠকে কড়া বার্তা জেলার মন্ত্রীদের। যেখানে যেখানে হিংসার ঘটনা ঘটছে, সেখানে মন্ত্রীদের সতর্ক থাকতে নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। নির্দেশ দিয়েছেন এলাকার পরিস্থিতির উপর বিস্তারিভ ভাবে নজর রাখার। এদিনের বৈঠকে দেগঙ্গার প্রসঙ্গ তোলেন মুখ্যমন্ত্রী। কেন এমন ঘটল, তা জানাতে চেয়ে কৈফিয়েত তলব করেন খাদ্যমন্ত্রী ও উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলা তৃণমূল সভাপতি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের থেকে। নবান্নের খবর, এই ঘটনার জেরে মুখ্যমন্ত্রীর ধমক শুনতে হয়েছে জ্যোতিপ্রিয়কে। মূলত দেগঙ্গার প্রসঙ্গে তুলেই জেলার সব মন্ত্রীদের সতর্ক করেন তিনি। পাশাপাশি মেদিনীপুরে বোর্ড গঠন ঘিরে যে সমস্যা তৈরি হয়েছে, তার সমাধানে রাজ্যের পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীকে আরও ভাল করে দেখার নির্দেশ দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।