বুধবার, ২৫শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

কেরলে নিপা ভাইরাস বাদুড় থেকে ছড়ায়নি

News Sundarban.com :
মে ২৬, ২০১৮
news-image

কেরলের বাদুড়ের থেকে সংগৃহীত নমুনা পরীক্ষা করে কেন্দ্রের মেডিকেল টিম স্বাস্থ্যমন্ত্রকে যে রিপোর্ট দিয়েছে, তাতে উঠে এল নতুন তথ্য, বাদুড়, শুয়োর থেকে নিপা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা খারিজ করে দেওয়া হল। ওই নমুনা নিপা ভাইরাসের ক্ষেত্রে নেগেটিভ প্রমাণিত হয়েছে পরীক্ষায়, শুয়োর ও বাদুড় নিপা-র সংক্রমণের প্রাথমিক উত্স নয়, বলা হয়েছে রিপোর্টে। সাত রকমের প্রজাতির বাদুড়, দু রকমের শুয়োর সহ মোট ২১ টি নমুনা পাঠানো হয়েছিল ভোপালের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব হাই সিকিউরিটি অ্যানিমাল ডিজিডেজ ও পুনের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ভাইরোলজিতে।
প্রসঙ্গত, কেরলের ওই দুই জেলায় নিপা ভাইরাসের বলি আপাতত ১২ জন। মেডিকেল টিম এখন প্রাণঘাতী ভাইরাস ছড়ানোর অন্যান্য সম্ভাব্য কারণগুলি খতিয়ে দেখছে।
ন্যাশনাল সেন্টার ফর ডিজিস কন্ট্রোলের ডিরেক্টরের নেতৃত্বাধীন বহুমুখী কেন্দ্রীয় টিম কেরলের পরিস্থিতির ওপর লাগাতার নজর রাখছে। তারা খসড়া গাইডলাইন, স্বাস্থ্যকর্মীদের পরামর্শ, নমুনা সংগ্রহ করে তা পাঠানোর ব্যাপারে পদ্ধতি-পরামর্শ, সবই সুন্দর করে সাজিয়ে দিয়েছে। তারা বলেছে, দেখা যাচ্ছে, সন্দেহভাজন নিপা ভাইরাস সংক্রমণ সহ যতগুলি ঘটনা সামনে এসেছে, সবগুলির ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি এই ভাইরাসে প্রথম মৃত ব্যক্তি বা তার পরিবারের প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষ সংস্পর্শে এসেছিলেন।
স্বাস্থ্যমন্ত্রকের জনৈক অফিসার বলেন, কেরলের পেরামব্রার একটি বাড়ির কুয়ো থেকে উদ্ধার হওয়া বাদুড়ের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। কেরলে প্রথম নিপা ভাইরাসে মৃত্যুর খবর এসেছিল ওখান থেকেই। কিন্তু ওই নমুনায় নিপা ভাইরাসের যোগসূত্র মেলেনি। নমুনা নিগেটিভ প্রমাণিত হয়েছে। নিপা ভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে যেসব মানুষের শরীর থেকে নমুনা জোগাড় করে পরীক্ষায় পাঠানো হয়েছিল, তার রিপোর্টও নিগেটিভ এসেছে। এর অর্থ মাত্র ১৫টি ক্ষেত্রে নিপা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার ঘটনা সত্যি দেখা যাচ্ছে, যার মধ্যে ১২টি মৃত্যু রয়েছে। বাকি তিনজনের চিকিত্সা চলছে।
এমনকী হিমাচল প্রদেশে পাওয়া একাধিক মরা বাদুড় থেকে নেওয়া যেসব নমুনা পুনের সংস্থায় পাঠানো হয়েছিল, সেগুলিও পরীক্ষায় নেগেটিভ দেখা গিয়েছে। হায়দরাবাদ থেকে পাঠানো সন্দেহভাজন দুটি নমুনাও নেগেটিভ বলে পরীক্ষায় প্রমাণিত হয়েছে।
আমজনতাকে আতঙ্কগ্রস্ত না হওয়ার পরামর্শ দিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রক বলেছে, এই সংক্রমণ কেরলের মধ্যেই সীমাবদ্ধ রয়েছে। সাধারণ মানুষকে প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেওয়ার পাশাপাশি স্বাস্থ্য পরিষেবা দেওয়া কর্মীদেরও আগাম প্রতিরোধমূলক পদক্ষেপ করতে বলেছে তারা।