শনিবার, ২১শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

প্রধানমন্ত্রী যখন বিশ্বভারতীর আচার্য

News Sundarban.com :
মে ২৫, ২০১৮
news-image

প্রধানমন্ত্রী মোদী বিশ্বভারতীর আচার্য , তিনি রবীন্দ্রানুরাগী। তাঁর কথায় এর আগেও বারবার উঠে এসেছে রবিঠাকুরের কথা এবং কবিতার পংক্তি। মোদী বলেন, ‘একজন আচার্য হিসাবে আজ আমি এখানে এসেছি। কেবলমাত্র গণতন্ত্রের কারণেই আমি এই সম্মান পেলাম। এরপর আবেগ জড়ানো কণ্ঠে তিনি বলেন, ‘গাড়ি থেকে নেমে যখন হেঁটে আসছিলাম, তখন প্রতি পদক্ষেপেই মনে হচ্ছিল, কখনও এই ভূমিতে কবিগুরুর পদধূলি পড়েছে। এখানে বসেই কত কবিতা লিখেছেন ঠাকুর, কত গানের সুর ভেবেছেন!’ মোদী আরও বলেন, ‘শান্তিনিকেতন আমার কাছে মন্দিরের মতো। মন্দিরে যেমন মন্ত্রচ্চারণে মন প্রাণিত হয়, শান্তিনিকেতনে এসে আমার তেমন মনে হচ্ছে।’ কবিগুরুর স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘রবীন্দ্রনাথ আজ দেশের সর্বত্র পূজিত। তাঁকে নিয়ে আজও বিশ্বের বহু বিশ্ববিদ্যালয়ে চর্চা হয়। তিনিই প্রথম বিশ্ব নাগরিক।’এর পাশাপাশি, বিশ্বভারতীর ছাত্রছাত্রীদের মোদীর পরামর্শ, ‘কেবল ডিগ্রি অর্জন করলেই হবে না। আপনাদের নিয়ে অনেক আশা রয়েছে। দেশের গ্রামের বিকাশে নিজেদের সৃষ্টিকে কাজে লাগান। আপনাদের হাত ধরেই গ্রামের উন্নয়ন হবে।’
বিশ্বভারতীর ছাত্রছাত্রীদের উজ্জীবিত করতে ফের কবিগুরুর গানের আশ্রয় নেন মোদী। তিনি বলেন, ‘যদি তোর ডাক শুনে কেউ না আসে, তবে একলা চল রে।।’ তিনি বলেন, ‘দেশের বিকাশে নিজেই এগিয়ে আসুন।’