সোমবার, ২৭শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

দোষীদের কঠোর শাস্তি চান ভোট সন্ত্রাসে নিহত আরিফ গাজীর পরিবার

News Sundarban.com :
মে ১৫, ২০১৮
news-image

ভোটের দিন বুথে ভোট দিতে গিয়ে দুষ্কৃতিদের গুলিতে নিহত হন দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলার কুলতলি থানার মেরীগঞ্জ নয়া পাড়ার বাসিন্দা আরিফ আলি গাজী। এলাকায় তৃণমূল কংগ্রেস কর্মী বলেই পরিচিত ছিল পেশায় দিনমজুর ও ঠিকাদারির কাজ করা আরিফ। স্থানীয় বালিরচর অবৈতনিক প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সোমবার সকাল সাড়ে নটা নাগাদ ঘটনাটি ঘটে। ঘটনার পর ২৪ ঘন্টার বেশি কেটে গেলেও এখনো পর্যন্ত এই ঘটনায় কাউকেই গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। ঘটনার পর কার্যত শোকাহত আরিফের পরিবারের সদস্য থেকে শুরু করে গ্রামবাসীরা। সকলেই চাইছেন দোষীদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে শাস্তির ব্যবস্থা করুক প্রশাসন।

সোমবার সকাল সকাল স্থানীয় বন্ধুদের নিয়ে বাড়ি থেকে চারশো মিটার দূরে বালিরচর বাজার লাগোয়া বালিরচর অবৈতনিক প্রাথমিক স্কুলে ভোট দিতে গিয়েছিলেন তৃণমূল কর্মী আরিফ আলি গাজী। ভোটের লাইনে সকলের সাথে দাঁড়িয়েছিলেন ও তিনি। কিন্তু আচমকা ঐ বুথে হামলা চালায় একদল দুষ্কৃতি। অভিযোগ দুষ্কৃতিরা সকলেই এসইউসিআই ও সিপিএম কর্মী। বুথের সামনেই বোমা মারে দুষ্কৃতিরা। বিস্ফোরণে চারিদিক কেঁপে উঠলে ছত্রভঙ্গ হয়ে ছুটতে থাকেন ভোটররা। সেই সুযোগে বুথের ভিতরে ঢুকে দেদার ছাপ্পা মারা চলে বিনা বাধায়। এলাকায় মুহুর্মুহু বোমা পড়তে থাকলে পালাতে যান আরিফ ও। সেই সময় তার বাইকের চাবি পকেট থেকে পড়ে গেলে তা তুলতে পিছন ঘুরলেই আরিফকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় দুষ্কৃতিরা। বুকে গুলি লাগে আরিফের। গুরুতর জখম অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। এই ঘটনায় এসইউসিআই ও সিপিএম এর দিকে অভিযোগের আঙুল তুলেছেন আরিফের পরিবার ও স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব। ঘটনার পর ২৪ ঘন্টা কেটে গেলেও কেউ গ্রেফতার না হওয়ায় কার্যত হতাশ নিহতের পরিবারের সদস্যরা।
দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলার পূর্ব বিজেপির যুব মোর্চার সম্পাদক রতন নস্কর বলেন “যে কোন মৃত্যু বেদনাদায়ক,প্রশাসনের উচিত অবিলম্বে দোষী ব্যাক্তিদের কে গ্রেফতার করে কঠোর শাস্তি প্রদান করে এলাকায় শান্তি শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা”।অন্যদিকে সকলস্তরের মানুষজন চাইছেন দোষীদের গ্রেফতার করুক পুলিশ, আর আরিফের মা চাইছেন শান্তি ফিরুক এলাকায়।