মঙ্গলবার, ৫ই জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

মৃত্যুদণ্ড আসলে ঠান্ডা মাথায় খুন, বলল নির্ভয়ার ধর্ষকরা

News Sundarban.com :
মে ৪, ২০১৮
news-image

আজও প্রত্যেককে নাড়িয়ে দেয় সেই নির্ভয়া কাণ্ড ৷ ২০১২ সালের ডিসেম্বরের সেই রাতে দিল্লির রাজপথের উপর চলন্ত বাসে ৬ জন মিলে এক মেডিক্যাল ছাত্রীকে গণধর্ষণ করে তাঁকে বাস থেকে ছুঁড়ে ফেলে দিয়েছিল ৷ আর সেই নির্ভয়া কাণ্ডের মৃত্যুদণ্ডে সাজাপ্রাপ্ত ৪ জন আজ শুক্রবার সুপ্রিম কোর্টকে বলে, ‘‘বিচারের নামে তাদের ঠান্ডা মাথায় খুন করা হচ্ছে ৷’’ সাজাপ্রাপ্ত চারজন শীর্ষ আদালতে আবেদন করে জানিয়েছিল যে তাদের মৃত্যুদণ্ডের সাজা মাফ করে দেওয়া হোক। যদিও শুক্রবার এ সংক্রান্ত কোনও সিদ্ধান্ত সুপ্রিম কোর্ট নিতে পারেনি। ২০১৭ সালে নিভয়ার ধর্ষকদের মৃত্যুদণ্ড দেন বিচারক ৷ মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত অপরাধীরা সেই রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে পিটিশন দায়ের করে ৷ শুক্রবার সেই পিটিশনের শুনানি হয় ৷ জানা গিয়েছে, সাজাপ্রাপ্ত দুই আসামীর শাস্তির মেয়াদ কমাতে গিয়ে তাদের আইনজীবী আদালতে সওয়াল করে বলেন, অপরাধীদের বয়স কম এবং তারা গরীব ৷ এর পাল্টা বিরোধিতা করেন সরকারি আইনজীবী ৷
সুপ্রিম কোর্টকে সাজাপ্রাপ্ত ২ জন খুনী জানায়, মৃত্যুর সময় নির্ভয়া যে বিবৃতি দিয়েছিল তা নিয়ে বিস্তর গোলযোগ রয়েছে । তিনি কখনওই অভিযুক্তদের নাম বলেননি । বিশেষ সরকারি কৌসুলি সিদ্ধার্থ লুথরা জানান, ২০১৭ সালে র মে মাসেই সুপ্রিম কোর্ট দোষীদের মৃত্যুদণ্ডের সাজা শুনিয়েছে । যে ধরনের অপরাধ তারা করেছে তার জন্য মৃত্যুদণ্ডই সঠিক । ২০১২ সালের ১৬ ডিসেম্বর দিল্লির চলন্ত বাসে নির্ভয়া গণধর্ষণ কাণ্ডটি ঘটে । ৬ জন দোষীর মধ্যে বাস চালক রাম সিং জেলের মধ্যেই আত্মঘাতী হয় । আর এক দোষী অপ্রাপ্তবয়স্ক হওয়ায় তাকে জুভেনাইল হোমে রাখা হয়েছিল । ১৮ বছর হওয়ার পর তাকে জুভেনাইল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয় । নির্ভয়া কাণ্ডের তরুণী ১৬ দিন মৃত্যুর সঙ্গে হাসপাতালে তাঁর মৃত্যু হয় । নির্ভয়ার পরিবার দোষীদের মৃত্যুদণ্ড চায় বলে জানিয়েছেন ।