মঙ্গলবার, ৫ই জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

বিজ্ঞাপনে নির্ভরতা

News Sundarban.com :
মে ৩, ২০১৮
news-image

শ্রেয়শ্রী ব্যানার্জী

আজ্কের ভোগবাদ বিজ্ঞাপনে নির্ভর। বাজারে কোন প্রডাক্ট চলবা কোন প্রডাক্ট চলবে না তা নির্ধারণ করে বিজ্ঞাপনের ভাষা। বিজ্ঞাপনের হাত ধরে চলতে মানুষের নিত্য নতুন প্রয়োজনের চাহিদা মেটানো। বর্তমানে বিজ্ঞাপনের অবস্থানকে দেখে এক কথায় বলা যেতে পারে বিজ্ঞাপন আমাদের জীবনের একটা অঙ্গ। সাবান থেকে হরলিক্স, ব্যাট থেকে টিভি , ফোন পোষাক থেকে মাদক এমন কি সিনেমা এর বাইরে নয়। রবীন্দ্রনাথ থেকে প্রসেনজিৎ বিজ্ঞাপনের দায়িত্ব নিতে হয়ে সবাই কে। তার মধ্যে লুকিয়ে থাকে সৃজনশীলতার বীজ। একের পর এক  তৈরী হয়ে বিজ্ঞাপনের মাস্টার পিস।  সহিত, সঙ্গীটি, বা হন শিল্পকলার থেকে যা কোনো অংশে কম যায় না। তৈরি হয়ে মিথ, তৈরী হয়ে দর্শন। প্রডাক্ট থাকে না, থেকে যায় বিজ্ঞাপনের নস্ট্যালজিয়া, আচ্ছ্ন্ন করে মন কে।

রবীন্দ্রনাথ জীবদ্দ্শায় বিজ্ঞাপনের জন্য দুহাত এনজসমেন্ট বিলিয়েছেন। হিদুসস্থান কোঅপারেট থেকে ইন্সুরেন্স কোম্পানির শেয়ার হলদের ছিলো ঠাকুর বাড়ির, তাই সংস্থার বিজ্ঞাপনে অন্যতম মুখ রবীন্দ্রনাথ। মিষ্টি থেকে মাথের তেল সবেইতে মুখ দেখা যায় রবীন্দ্রনাথের। এমন কি বসাকদের প্রসাধন রেডিয়াম স্নো ক্রিম এর বিজ্ঞাপনে হাস্যরত রবীন্দ্রনাথ্কে দেখা গেছে। রবীন্দ্রনাথ দিয়ে শুরু তারপর বিজ্ঞাপনে এসেছেন সেলিব্রটিরাও,। লাক্স সাবানের প্রথ্ম লগ্ন থেকে ক্যাচ লাইন “চিত্রতারকাদের সৌন্দর্য সাবান”। একটা সময় মনে  করা হতো বিজ্ঞাপনে মুখ দেখাতে পারলে তবেই একজন নায়িকা সত্যিকারের ডোরের নায়িকা হয়ে উটে পারে। নায়িকাদের পাশাপাশি নায়করাও বহুবার মুখ দেখিয়েছেন বিজ্ঞাপনে। জামাকাপড় থেকে ঠান্ডা পানীয় গ্লুকোজ থেকে মাদ্ক স্বেতেই অবাদ বিচরন। আর শুরু হয়ে গেল ব্যান্ড অম্বাস্যাটারের যুগ। পরীক্ষায় ভালো ফল করতে চাই পুষ্টি তাই রোজ বাচাদের খাবান হর্লিক্স২, আর বাড়ন্ত বাচাদের জোন কমপ্লেন। স্বাস্থ্য ও পুষ্টি নিয়ে ব্রান্ডের  মধ্যেএক মারামারি বহুযুগের। বাবা মা দের ধারনা কমপ্লান আর হর্লিক্স না খেলে বাচাদের ভবিষৎ অন্ধকার। অথচ প্রথমে কমপ্লান বাচাদের পুষ্টির কথা বলা হতো না। তা ছিল অন্তঃসত্তাদের জন র হরলিক্স ছিলো সবার জন্য। ক্রিকেট মালে গ্ল্যামার আর একশো কোটি ভারতীয় এগারোজন দেবতার বিজ্ঞাপনে এদের অবারিত অনুপ্রবেশ। কপিল থেকে সৌরভ থেকে বিরাট মুখ দেখিয়েছে সবাই। আমূলইথেক্রে ভোডাফোন সর্বত্রই কল্পনিকচরিত্ররা যায়গা করে নিয়েছে।

যুগের পরিবর্তন মানে রুচির পরিবর্তন। সিনেমা হলো সমাজের দর্পন, সিনেমার গল্পের বদলের  সাথে সাথে পাল্টেছে পোস্টারের ধরণ। আর স্ব্তন্ত্র পোস্টার আট্স্টি হিসেবে বিখ্যাত চলচ্চিত্রকার সত্যজিৎ রায়। বাংলা সিনেমার একটা ঐতিহাসিক মাত্রা আছে যার জন্য দর্শকেরা আজ হলমুখী। আজ গলিতে গলিতে চেয়ে গেছেন তামাক জাত ড্রোব সেবন ক্যান্সারের কারণ কিন্তু মানুষের মধ্যে কোন স্চেতনতা জাগেনি। বিজ্ঞাপন জেনম সাধারণ মানুষের মনে প্রডাক্টের সমন্ধেও আগ্রহের শিখা জ্বালিয়ে তেমন ঠিক ভুল বিচারের ক্ষমতাও যোগায়। আক্ষেপের বিষয়ে সাধারণ মানুদের মধ্যে থেকে বিচারের ক্ষমতা দিনে দিনে লোপ পাচ্ছে। সাধারণ মানুষটাকে বোকা বানিয়ে দিনে দিনে বিজ্ঞাপন সস্থা গুলি রমরমিয়ে চলছে তাদের ব্যবসা। মানুষের ধারনা সেলিব্রেটিদের ব্যভার জিনিস  শারীরিক ক্ষতি করে না। বিজ্ঞাপন যেমন গণমাধ্যমের কাজ করে, অন্যদিকে বিজ্ঞাপনে অশালীন ছবি জনসাধারণের কাছে দৃশ দূষণ বলে গণ্য হয়েছে। এযেন একই ক্য়েনের দুটো পিট।