রবিবার, ১৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

ফালাকাটা কৃষক বাজারকে জাতীয় কৃষি বাজারের স্বীকৃতি দিয়েছে কেন্দ্র

News Sundarban.com :
মার্চ ২৬, ২০১৮
news-image

সোমবার ফালাকাটা কৃষক বাজারকে জাতীয় কৃষি বাজারের স্বীকৃতি দিয়েছে কেন্দ্র। ২০১৫ সালে ১ এপ্রিল মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের শুভ উদ্বোধনের পর চলতে শুরু করে আলিপুরদুয়ার জেলার ফালাকাটা কৃষাণ মান্ডি । প্রাথমিকভাবে ২২টি স্টল নিয়ে ফালাকাটা কৃষক বাজার চালু হয়েছিল। চালুর পর থেকে এই বাজারে ভালো বেচা কেনা হচ্ছে। এই বাজারের সাফল্যের কথা মাথায় রেখে এখানে আরও ১০০টি নতুন স্টল নির্মাণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে জেলা নিয়ন্ত্রিত বাজার সমিতি। এই কাজের জন্য ৩ কোটি ৮৪ লাখ টাকার টেন্ডার ডাকা হয়েছে। এই বাজার এখন জাতীয় কৃষি বাজারে উন্নীত হল। আজ একথা জানান আলিপুরদুয়ার জেলা রেগুলেটেড মার্কেট কমিটির সচিব সুব্রত কুমার দে। ফলে, দেশের ১৪টি রাজ্যের ৪৭৮টি কৃষি বাজারের সঙ্গে নাম জুড়েছে ফালাকাটা কৃষক বাজারের। এর জেরে দেশের যে কোনও কৃষি বাজারে যিনি সবথেকে বেশি দাম দিতে চাইছেন, সেখানেই বিক্রি করা যাবে ফালাকাটা কৃষক বাজারের পণ্য।ফলে বিভিন্ন হাটের তুলনায় এই বাজারে কৃষকরা তাঁদের পণ্যের বেশি দাম পাবেন। পাইকারি দরে এই বাজারে আলু ৯ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এই দাম পেয়ে চাষিরা আনন্দিত। এই ঘটনায় খুশি জেলা রেগুলেটেড মার্কেট কমিটির আধিকারিকরাও।
জেলা রেগুলেটেড মার্কেট কমিটির সচিব বলেন, “আমরা এই বাজারকে সদ্য e-NAM-এর মাধ্যমে দেশের অন্য কৃষি বাজারের সঙ্গে যুক্ত করেছি। এখানে আমরা ফসল পরীক্ষার জন্য টেস্টিং মেশিন বসাব। তার পর ফসলের গ্রেডিং হবে। সেই অনুযায়ী গোটা দেশে এই বাজারের পণ্য বাজারজাত হবে। প্রাথমিকভাবে আমরা এই উদ্যোগে সাড়া পাচ্ছি। সংযুক্তিকরণের প্রথম দিনেই ফালাকাটা কৃষক বাজারে আলুর পাইকারি দর ছিল ৯ টাকা প্রতি কেজি। আমরা খুশি।” e-NAM গ্রামসভার প্রথম মিটিং হবে ৪ এপ্রিল ফালাকাটার ময়রাডাঙা গ্রামে। এই বৈঠকে ব্লক প্রশাসনের কর্তারা, স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েত, পঞ্চায়েত সমিতি, বিভিন্ন ফার্মার ক্লাব, চাষিরা ও রেগুলেটেড মার্কেট কমিটির সদস্যরা উপস্থিত থাকবেন। এই মিটিংয়ে e-NAM এর মাধ্যমে পণ্য বেচাকেনা সহ যাবতীয় বিষয় নিয়ে চাষিদের সচেতন করা হবে।