বুধবার, ২৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

রাজ্যে সরকারি কর্মচারীদের বকেয়া ডিএ ,ষষ্ঠ বেতন কমিশন চালুর দাবিতে মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি কর্মচারী সংগঠনের

News Sundarban.com :
মার্চ ৯, ২০১৮
news-image

বাড়ছে কেন্দ্রীয় সরকারী কর্মচারীদের মহার্ঘ ভাতা সহ বেতনও ৷ কেন্দ্রে সপ্তম বেতন কমিশন চালু হয়ে গেলেও রাজ্য এখনও আটকে পঞ্চম বেতন কমিশনে। এখনও নিষ্পত্তি হয়নি রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের বকেয়া ডিএ মামলারও ৷ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে আলোচনায় বসতে চেয়ে চিঠি পাঠালেন পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারি কর্মচারী সংগঠন৷ বহুদিন ধরেই বেতন বৃদ্ধির দাবি জানিয়ে আসছে রাজ্য সরকারি কর্মী সংগঠনগুলি ৷
২০১৬ সালে অগাস্ট মাসের প্রথম তারিখ থেকেই সপ্তম বেতন কমিশনের নির্দেশে কেন্দ্রীয় সরকারী কর্মচারীদের মাইনে বেড়েছে ২.৫৭ গুণ হারে ৷ এর ফলে রাজ্যের সঙ্গে কেন্দ্রের কর্মচারীদের বেতনের ফারাক অনেকটা বেড়ে যায়। সপ্তম বেতন কমিশনের আওতায় বেতন দেওয়া হচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের। রাজ্য এখনও আটকে পঞ্চমে। সপ্তম বেতন কমিশন কার্যকর হওয়ার পর রাজ্য ও কেন্দ্রের কর্মচারীদের ডিএ-এর ফারাক বেড়ে দাঁড়ায় ৫৮%। সপ্তম বেতন কমিশনের নির্দেশে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের বেতন বাড়লেও একই রয়েছে রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের বেতন ৷ অন্যদিকে, হাইকোর্টে বিচারাধীন রাজ্য সরকারী কর্মচারীদের বকেয়া ডিএ মামলাও ৷ একাধিক অমীমাংসিত দাবিগুলি নিয়ে এবার সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মুখোমুখি বসতে চেয়ে আবেদন জানিয়েছে রাজ্য কো-অর্ডিনেশন কমিটি ৷
মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ১৫ শতাংশ হারে ডিএ বা মহার্ঘ ভাতা দেওয়ার ঘোষণার পর কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের মধ্যে সেই বেতন ফারাক কমে ৩৯ শতাংশে এসে দাঁড়ায় ৷কিন্তু গত 7 মার্চ আরও দুই শতাংশ হারে কেন্দ্রীয় কর্মচারীদের মহার্ঘ ভাতা বৃদ্ধির কথা ঘোষণা করে কেন্দ্র৷ ফের ফারাক বেড়ে দাঁড়ায় 49 শতাংশে ৷ বাংলায় কর্মচারীদের বেতন পরিকাঠামো পরিমার্জনের জন্য ষষ্ঠ বেতন কমিশন গঠন করে রাজ্য । ২০১৬ সালের ২৫ নভেম্বরই এই কমিশনের কার্যকাল শেষ হওয়ার কথা ছিল ৷ কবে থেকে রাজ্যে চালু হবে ষষ্ঠ বেতন কমিশন তা নিযে এখনও ধোঁয়াশা ৷