শনিবার, ১০ই জুন, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

চিকিৎসার গাফিলতিতে হাসপাতালে শিশু মৃত্যুর অভিযোগ

News Sundarban.com :
মার্চ ৭, ২০১৮
news-image

সদ্যজাত এক শিশুর মৃত্যুকে কেন্দ্র করে দক্ষিণ ২৪ পরগনার জেলার ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে উত্তেজনা ছড়ালো। চিকিৎসার গাফিলতিতে এক সদ্যজাত শিশুর মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ তুলেছেন পরিবারের লোকেরা। সোমবার রাতে ওই সদ্যজাতর জন্মের পর থেকেই কর্তব্যরত নার্স ও চিকিৎসকরা সঠিকভাবে তার চিকিৎসা করেনি বলে ও অভিযোগ উঠেছে। জন্মের পর থেকেই শিশুটি শ্বাসকষ্টে ভুগতে থাকে।একাধিক বার ডাক্তার ও নার্সদের জানানোর দীর্ঘক্ষণ পরে শিশুটিকে সাময়িক সময়ের জন্য অক্সিজেন দেওয়া হলেও পরে তা খুলে নেওয়া হয়। আর অক্সিজেন খুলে দেওয়ার কিছুক্ষণ পরেই শিশুটির মৃত্যু হয় বলে অভিযোগ উঠেছে। ঘটনার পর কান্নায় ভেঙে পড়েছেন শিশুটির পরিবারের সদস্যরা। সোমবার সন্ধ্যা নাগাদ ক্যানিং থানার দিঘীরপাড় গ্রাম পঞ্চায়েতের নন্দন পল্লীর বাসিন্দা রুমা মণ্ডল প্রসব যন্ত্রণা নিয়ে ভর্তি হন ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে। সোমবার রাতেই একটি পুত্র সন্তানের জন্ম দেন রুমা দেবী। শিশুটি জন্মের পর থেকেই শ্বাসকষ্টে ভুগছিল। তা দেখেই পরিবারের সদস্যরা কর্তব্যরত নার্স ও চিকিৎসকদের বিষয়টি জানান। জানানোর দীর্ঘক্ষণ বাদে নার্সরা শিশুটিকে অক্সিজেন দেওয়ার ব্যবস্থা করেন। মৃত শিশুটির পরিবারের আরও অভিযোগ সদ্যজাতকে সাময়িক অক্সিজেন দিলেও কিছুক্ষন বাদেই তা খুলে দেওয়া হয়। আর সেই ঘটনার পরই শ্বাসকষ্ট জনিত সমস্যার কারনে মৃত্যু হয় ওই সদ্যজাতের। এরপরই চিকিৎসার গাফিলতির অভিযোগ তুলে হাসপাতাল চত্বরে বিক্ষোভ দেখান মৃত শিশুর পরিবারের সদস্যরা। এ বিসয়ে শিশুটির ঠাকুর্দা সত্যজিৎ মণ্ডল,ঠাকুমা সবিতা মন্ডল  বলেন, “ আমার নাতির জন্ম নেওয়ার ওদের শ্বাসকষ্ট হচ্ছিল বারে বারে ডাক্তারবাবু ও নার্সদের বলেছি। ওরা অক্সিজেন দিয়ে আবার খুলে নিলো। এই কারনেই আমার নাতির মৃত্যু হয়েছে”। যদিও এ বিসয়ে হাসপাতাল সুপার ডাঃ অর্ঘ্য চৌধুরী বলেন, “ শিশুটি যথেষ্ট কম ওজন নিয়ে জন্মেছিল। জন্মের পর মায়ের কোলেই ছিল সে। মাতৃদুগ্ধ পানের সময় কোনভাবে শ্বাসনালীতে তা আটকে নিস্তেজ হয়ে পড়ে।  শিশুটির নিজের মা ও বুঝতে পারেনি বিষয়টি। নার্সরা ভ্যাকসিন দিতে যাওয়ার সময় বিষয়টি লক্ষ্য করেন। তখন কর্তব্যরত চিকিৎসককে দেখালে শিশুটিকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়”।