শনিবার, ২৫শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

কমলা গার্লস স্কুলে নির্যাতনের শিকার নবম শ্রেণির ছাত্রী

News Sundarban.com :
ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৮
news-image

জিডি বিড়লা, এমপি বিড়লার, কারমেল এর পর এবার নির্যাতনের শিকার নবম শ্রেণির ছাত্রী৷ এই ঘটনায় অভিযুক্ত দক্ষিণ কলকাতার আরো এক স্কুল কমলা গার্লস স্কুল৷ বার বার শহরের স্কুল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে শিশু থেকে ছাত্রীদের স্কুলে নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন উঠ্ছে।দিনের পর দিন একই ঘ্ট্নার পুনরাবৃত্তি ঘ্টে চ্লেছে স্কুল্গুলিতে ৷ যথারীতি এই ঘটনার ক্ষেত্রেও স্কুলের বিরুদ্ধে অভিযোগ চাপা দেওয়ার জন্য চাপ দিয়েছে তারা৷ যদিও এই ঘটনা নিয়ে এখনও স্কুল কর্তৃপক্ষ কোনও বিবৃতি দেয়নি৷ তবে সোশ্যাল মিডিয়ায় এই অভিযোগকে কেন্দ্র করে সরব হয়েছেন স্কুলের অভিভাবক ও প্রাক্তন ছাত্রীরা৷ ফেসবুকে লেখা স্কুলেরই এক প্রাক্তন ছাত্রীর বয়ান অনুযায়ী, বৃহস্পতিবার ঘটনাটি ঘটেছে৷ সেদিন স্কুলে স্পোর্টস ছিল৷ স্কুলের নবম শ্রেণির এক ছাত্রী শারীরিক অসুস্থতা বোধ করায় ক্লাসে চলে যায়৷ সেখানেই স্কুলের এক অশিক্ষক কর্মচারী তাকে মোবাইল দেখানোর অছিলায় যৌন নিগ্রহ করে বলে অভিযোগ৷ ফেসবুকের ওই পোস্টে স্কুলের ওই প্রাক্তন ছাত্রীর দাবি, এর পর স্কুল কর্তৃপক্ষ বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করে৷ মেয়েটিকে সাসপেন্ড করার হুঁয়িশারিও দেয়৷
সূত্রের খবর, বাড়ি গিয়ে মেয়েটি সব জানায় বাড়ির লোকেদের৷ বিষয়টি অভিভাবকদের মধ্যেও চাউড় হয়৷ এর পর শুক্রবার স্কুলে বিক্ষোভ দেখান অভিভাবকরা৷ তার জেরে সেখানে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়ায়৷ ঘটনাস্থলে আসে নবগঠিত রবীন্দ্র সরোবর থানার পুলিশ৷ বিক্ষোভের পর অভিভাবক ও অভিযুক্তকে নিয়ে থানায় যান কমলা গার্লস স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা শিখা সরকার৷ এর পরই অভিভাবকদের বয়ানের ভিত্তিতে ওই অশিক্ষক কর্মচারীর বিরুদ্ধে এফআইআর করে পুলিশ৷ মলয় বড়ুয়া নামে ওই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে পুলিশ৷ যদিও এমন ঘটনা নাকি ওই অভিযুক্ত আগেও ঘটিয়েছেন৷ স্কুলেরই এক প্রাক্তন ছাত্রী ফেসবুকে সেকথা লিখেওছেন৷ প্রতিবারই বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়া হয়েছে৷ ফলে এবারও স্কুল কর্তৃপক্ষ বিষয়টি ধামাচাপা চেষ্টা করে বলে অভিযোগ৷ কিন্তু বিক্ষোভ হওয়ায় বিষয়টি প্রকাশ্যে চলে আসে৷