শনিবার, ২৫শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

মোবাইলে কথা বলার সময় গাড়ি চালানো অপরাধ, নতুন আইন প্রয়োগের নির্দেশ রাজ্যের

News Sundarban.com :
ফেব্রুয়ারি ৩, ২০১৮
news-image

দৌলতাবাদে বাস দুর্ঘটনায় ৪০ জনের মৃত্যুর জেরে রাজ্য সরকার,চালক মোবাইলে কথা বলায় ওই দুর্ঘটনা ঘটে বলে অভিযোগ৷ এই ঘ্ট্নার জেরে রাজ্য সরকার ঘোষণা করল মোবাইলে কথা বলার সময় গাড়ি চালানোর অপরাধে চালকদের বিরুদ্ধে আরও কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য পুলিশকে নির্দেশ দিল রাজ্য সরকার৷ রাজ্য সরকার মনে করছে, গাড়ি চালানোর সময় মোবাইল ব্যবহার করলে চালক অন্যমনস্ক হয়ে পড়ে৷ যা অনেক ক্ষেত্রেই পুলিশের নজরও এড়িয়ে যায়, সিসিটিভিতেও ধরা পড়ে না৷ চালকের অন্যমনস্কতাই এই ধরনের দুর্ঘটনার অন্যতম কারণ বলে মনে করছে রাজ্য৷ সেজন্য এই ধরনের দুর্ঘটনা কমাতে কড়া আইন প্রয়োগ করে ড্রাইভিং সিটে মোবাইলের ব্যবহার বন্ধ করতে চাইছে সরকার৷ তাই মোটর ভেহিকেল আইনের নতুন ধারা প্রয়োগ করতে বলা হয়েছে৷ তাই রাজ্য পরিবহণ দফতর থেকে জারি করা নতুন একটি বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, গাড়ি চালানোর সময় মোবাইল ব্যবহার করলে এখন থেকে সব চালকের বিরুদ্ধে মোটর ভেহিকেলস আইনের ২১৮ (২) ধারার বদলে ওই আইনের ১৮৪ ধারাতে মামলা রুজু করতে হবে৷ মোটর ভেহিকেলস আইনে এই ধারার ব্যাখ্যা হল, ‘ডেঞ্জারাস ড্রাইভিং’৷ এই ধারায় জরিমানার অঙ্ক আগের থেকে ১০ গুণ বেশি৷ অর্থাৎ ১ হাজার টাকা৷ পাশাপাশি অভিযুক্ত চালকের লাইসেন্স তিন মাসের জন্য সাসপেন্ডও করা হতে পারে৷রাজ্য সরকারের জারি করা নতুন বিজ্ঞপ্তিতে সুপ্রিম কোর্টের আদেশ বহাল রেখেই আগের থেকে আরও কঠোর ধারা প্রয়োগ করতে বলেছে৷
শুক্রবার রাতে রাজ্যের জারি করা নতুন এই বিজ্ঞপ্তি পৌঁছে গিয়েছে কলকাতা-সহ সবক’টি জেলার পুলিশের কাছে৷ ওইদিন থেকেই এই নিয়ম লাগু হয়েছে রাজ্যজুড়ে৷ কলকাতা পুলিশের ডিসি (ট্রাফিক) সুমিত কুমার বলেন, ‘‘শুক্রবার রাতে আমরা এই বিজ্ঞপ্তি হাতে পেয়েছি৷ ইতিমধ্যেই এই নিয়ম লাগু করা হয়েছে৷ আগের থেকে অনেক কঠোর এই ধারা৷’’
পুলিশ সূত্রে খবর, এতদিন মোবাইল কানে দিয়ে গাড়ি চালানোর অপরাধে ধরা পড়লে রাজ্য মোটর ভেহিকেলস আইনের ২১৮ (২) ধারায় স্পট ফাইন করা হত৷ প্রথমবার এই অপরাধ করলে ১০০ টাকা, দ্বিতীয়বার একই অপরাধ করলে ২০০ টাকা, তৃতীয়বার হলে ৩০০ টাকা ফাইন করা হত৷