বৃহস্পতিবার, ৩০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

মধ্যবিত্তের কপালে ভাঁজ

News Sundarban.com :
জানুয়ারি ২৪, ২০১৮
news-image

দিন দিন লাফিয়ে বাড়ছে তেলের দাম৷ ফলে তার জ্ন্য বাড়ছে মোদী সরকারের উপর মধ্যবিত্তের ক্ষোভ । কলকাতায় লিটারে ৭৫ তো মুম্বইতে ৮০ টাকা৷ এরমধ্যে আবার কেন্দ্রীয় শুল্কের পরিমাণ পেট্রোলে ১৯ টাকা ৪৮ পয়সা এবং ডিজেলেও ১৫ টাকা ৩৩ পয়সা। তার উপর যোগ হচ্ছে রাজ্যের ভ্যাট। তবেইতিমধ্যেই বিরোধীদের অভিযোগের আঙুল উঠেছে কেন্দ্রের শুল্কের দিকে। প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরমের অভিযোগ তুলেছেন, বিশ্ব বাজারে যখন অপরিশোধিত তেলের দাম তলানিতে ঠেকে ছিল, তখন তার সুবিধা এদেশের জনগণকে পেতে দেয়নি মোদী সরকার৷ তখন অপরিশোধিত তেলের দাম ৫০ ডলারের নীচে চলে গেলেও সেই সময় বরং কর বসিয়ে কোষাগার ভরেছে কেন্দ্র। এখন আবার তেলের দাম বাড়ায় একই ভাবে ক্রেতাদের শুষেছেন। এ দেশে তেলের দাম অনেকটাই নির্ভর করে বিশ্ব বাজারে অপরিশোধিত তেলের দামের উপর নির্ভরশীল। এখন বিশ্ব বাজারে তেলের দাম বাড়ছে কারণ, মধ্য এশিয়ার ১৩টি তেল উৎপাদক দেশের সংগঠন ‘ওপেক’ তেলের উৎপাদন কমিয়ে দিয়েছে। পাশপাশি রাশিয়াও সরবরাহ কমিয়েছে। তার উপরে আন্তর্জাতিক অর্থ ভাণ্ডার (আইএমএফ) বিশ্বের অর্থনীতি ২০১৮ ও ২০১৯-এ ৩.৮ শতাংশ বৃদ্ধির পূর্বাভাস করেছে। যারফলে এ বছরের তুলনায় বেশি তেলের চাহিদা ও দাম, দুই-ই বাড়তে পারে।
পরিস্থিতি বুঝে তেল মন্ত্রক অরুণ জেটলির অর্থ মন্ত্রকের কাছে প্রস্তাব পাঠিয়েছে, উৎপাদন শুল্ক কমানোর ব্যপারে৷ একদেশ এক কর ব্যবস্থা বলে জিএসটি চালু হলেও তার আওতা থেকে বাদ রাখা হয়েছে পট্রোপণ্যকে কিন্তু এবার পেট্রোল-ডিজেলকেও থেক উৎপাদন শুল্ক, ভ্যাটের বদলে শুধু জিএসটি চাপাতে বলা হচ্ছে।কিন্তু বলাটা যত সহজ ততটাই শক্ত কাজ কারণ শুল্ক কমালে কেন্দ্রের আয় কমে যাবে। ফলে রাজকোষ ঘাটতি আরও বাড়বে তা মোকাবিলা করাটা কঠিন কাজ৷