বুধবার, ১২ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

জি ডি বিড়লা ঘট্নায় বড়সড় প্রশ্নের মুখে পুলিশি তদন্ত

News Sundarban.com :
জানুয়ারি ৮, ২০১৮
news-image

 

,জি ডি বিড়লায় ছাত্রী নিগ্রহের ঘটনায় ফের বড়সড় প্রশ্নের মুখে পুলিশ,৷ টি আই প্যারেডের সময় অভিযুক্তদের কেন সামনা সামনি আনা হল না, তদন্তের নামে কেন বারংবার শিশুকন্যাকে হয়রানি করা হচ্ছে সেই প্রশ্ন তুললেন নির্যাতিতার মা৷ তাঁর কথায়, ‘‘আমি আগেও বলেছি, এখনও বলছি তদন্তের নামে তথ্য ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করছে পুলিশ৷ বারংবার নানাভাবে আমাদের ও আমার চার বছরের শিশুকন্যাকে হেনস্থা করছে পুলিশ৷’’
জিডি বিড়লার চার বছরের শিশুকে যৌন নির্যাতনে অভিযুক্তদের সোমবার টিআই প্যারেড হওয়ার কথা ছিল৷ সেই মতো নির্ধারিত সময়ে শিশুকন্যাকে নিয়ে আলিপুর আদালতে হাজির হয়েছিলেন শিশুটির বাবা-মা৷ আদালত সূত্রের খবর, বিচারকের উপস্থিতিতে আলাদা ঘরে টি আই প্যারেডের প্রক্রিয়া শুরু হয়৷ ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কেন টিআই প্যারেড করা হচ্ছে, কেন অভিযুক্তদের সামনে আনা হল না- আদালত কক্ষেই সেই প্রশ্ন তোলেন নির্যাতিতা শিশুটির মা৷ যদিও ভিডিওর মান অত্যন্ত খারাপ থাকায় এবং নেট ওয়ার্ক সমস্যা ‘উইক’ থাকায় কার্যত ভেস্তে যায় টিআই প্যারেড প্রক্রিয়া৷
আদালত সূত্রে খবর, ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে শিশুটির সামনে দশজনকে আনা হয়েছিল৷ ডিজিট্যাল স্ক্রিনে তাঁদের ছবি এতটাই অস্পষ্ট ছিল যে ভালো করে তাদের মুখ বোঝা যাচ্ছিল না৷ ফলে অভিযুক্তদের চিহ্নিত করতে গিয়ে সমস্যায় পড়ছিল শিশুটি৷ সাময়িক বন্ধ রাখা হয় টিআই প্যারেড৷ নতুন করে ফের শুরু হয় শনাক্তকরণের প্রক্রিয়াটি৷ কিন্তু দ্বিতীয়বার নেটওয়ার্ক অত্যন্ত দুর্বল থাকায় সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়৷ স্বভাবতই এদিন টিআই প্যারেড বন্ধ করে দিতে বাধ্য হন বিচারক৷
আদালত কক্ষের বাইরে বেরিয়ে এবিষয়ে পুলিশের ভূমিকা নিয়ে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন নির্যাতিতা শিশুর মা৷ ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে টিআই প্যারেড করার যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে তাঁর দাবি, ‘অভিযুক্তদের সামনে এনে টিআই প্যারেড করাতে হবে৷’’ পুলিশের বিরুদ্ধে হাইভোল্টেজে সুর চড়িয়ে তিনি বলেন, ‘এর আগে মেডিক্যাল টেস্টের নামে দু’বার ডেকেও তা করানো হয়নি৷ নানাভাবে পুলিশ তদন্তের নামে আমাদের লাগাতার হয়রানি করে চলেছে৷ প্রয়োজনে ফের আদালতের দ্বারস্থ হব৷’’