শনিবার, ১৮ই মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

নতুন বছরের গোড়া থেকে দিঘায় চালু হতে চলেছে‘নতুন পরিষেবা’

News Sundarban.com :
ডিসেম্বর ২৯, ২০১৭
news-image

নিজের জেলা পূর্ব মেদিনীপুর থেকে তেমনই এক নজিরবিহীন উদ্যোগ নিলেন পরিবহণ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী৷ পর্যটন জেলা পূর্ব মেদিনীপুরের দিঘা, মন্দারমনি, তাজপুর ও শংকরপুরে পর্যটকদের স্বাচ্ছন্দ্যের কথা মাথায় রেখে আগামী বছরের গো়ড়া থেকেই ই-বাইক পরিষেবা চালু করতে চলেছে দিঘা উন্নয়ন পর্ষদ৷
সূত্রের খবর, পর্ষদের উদ্যোগে এই পরিষেবা চালু হলেও এর মূল উদ্যোক্তা নন্দীগ্রামের বিধায়ক তথা রাজ্যের পরিবহণ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী৷ দিঘা হোটেল ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি হিমাংশু প্রধান বলেন, ‘‘পরিবহণ মন্ত্রীর এহেন উদ্যোগ নিঃসন্দেহে প্রশংসনীয়৷ এর ফলে আরও বেশি করে পর্যটকরা দিঘা, মন্দারমনি মুখী হবেন৷’’ আগামী বছরের গোড়া থেকে দিঘায় চালু হতে চলেছে‘ ই-বাইক পরিষেবা’। এবিষয়ে দিঘা উন্নয়ন পর্ষদের সঙ্গে ডোস হুইলার নামে একটি সংস্থার চুক্তি হয়েছে। আধারকার্ড ও ড্রাইভিং লাইসেন্স থাকলেই দিঘায় সংস্থার দুটি কাউন্টার থেকে পাওয়া যাবে ই-বাইক। এই পরিষেবা নিতে ঘন্টা পিছু পর্যটকদের ব্যয় করতে হবে মাত্র ৬০ টাকা সারাদিনের জন্য বাইক ভাড়া নিলে খরচ পড়বে ৯০০ টাকা। দুজন প্রাপ্ত বয়স্ক ও একজন শিশু নিয়ে এই ই-বাইকে চড়তে পারবেন পর্যটকরা। ফলে এই ই-বাইকের সাহায্যে পর্যটকরা অতি সহজেই দিঘা মন্দারমণি সহ পর্যটন কেন্দ্রগুলিতে নিজেদের মতো করে স্বাচ্ছন্দ্যে ঘুরতে পারবেন।সংস্থার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, প্রাথমিকভাবে দিঘায় দুটি কাউন্টার খোলা হচ্ছে। প্রতিটি বাইকের সাথে জিপিএস পরিষেবা চালু থাকছে।
মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্বপ্নকে বাস্তবায়িত করতে সৈকত শহর দিঘা, মন্দারমণি, তাজপুর ও শংকরপুরকে এক সুতোয় বাঁধার জন্য উদ্যোগী হন রাজ্যের পরিবহ মন্ত্রী। মূলত শুভেন্দুবাবুর ভাবনা থেকেই পর্যটকরা যাতে কম খরচে বেশি জায়গা ঘুরতে পারেন সেজন্যই এই বিশেষ পরিষেবা চালু করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে৷