বুধবার, ৬ই জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলাদের প্রশিক্ষণ

News Sundarban.com :
ডিসেম্বর ২৬, ২০১৭
news-image

সুভাষ চন্দ্র দাশ

মাশরুম এক বিশেষ ধরনের ছত্রাক। মাশরুম বিভিন্ন নামে পরিচিত। ভুঁইফোঁড়,পাতাল ফোঁড়,কোঁড়ক,ছাতু প্রভৃতি নাম। পৃথিবীর সর্বত্র এই ছত্রাক সবজী হিসাবে ব্যবহৃত হয়। ২০০১ সলে আমাদের দেশে পঞ্চাশ হাজার টন মাশরুম উৎপাদিত হয়েছে। ১৯৯৬-৯৭ সালে দশ হাজার টন মাশরুম সুইডেন,ডেনমার্ক,ব্রাজিল,অষ্ট্রেলিয়া,জার্মান,ফিলিপাইনস,আমেরিকা,হল্যান্ড,ইজরায়েল,কানাডা সহ অন্যান্য দেশে রপ্তানী হয়। আর সেই মাশরুম চাষে প্রত্যন্ত গ্রাম্য স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলাদের প্রত্যক্ষভাবে স্বনির্ভরতার করার লক্ষ্যে কেন্দ্রীয় প্রকল্প এগ্রিকালচারাল টেকনোলজি ম্যানেজমেন্ট এজেন্সী(আত্মা) প্রশিক্ষণ দিয়ে অর্থনৈতিক ভাবে সাবলম্বী করে তোলার জন্য কাজ করে  চলেছেন ক্যানিং ২নং ব্লকের কৃষি দফতর ও স্থানীয় একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা।দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলার জীবনতলা থানার মঠেরদিঘী গ্রাম পঞ্চায়েতের কৃষি খামারে কৃষি দফতরের আর্থিক সহায়তায় ও স্থানীয় মঠেরদিঘী পল্লী সেবা সদনের উদ্যোগে মহিলাদের কে স্বনির্ভরতা ও অর্থনৈতিক ভাবে সাবলম্বী করে তোলার জন্য শুরু হল “ঝিনুক মাশরুম” চাষ প্রশিক্ষণ।
ক্যানিং ২নং ব্লক সহ-কৃষিঅধিকর্তা মিন্টু জানা বলেন “কেন্দ্রীয় সরকারের আত্মা প্রকল্পে স্বনির্ভর গোষ্ঠী মহিলাদের হাতে কলমে প্রশিক্ষণ দেওয়ার কাজ চলছে। প্রত্যেক কে আলাদা আলাদা ভাবে “ঝিনুক মাশরুম” তৈরী জন্য স্পন(২০০গ্রাম মাশরুম বীজ)দিয়ে আড়াই মাসে ৬ টি ক্লাসের মাধ্যমে প্রশিক্ষণ দিয়েই মাশরুম উৎপন্ন করে বাজারে পাঠানো হয়।  ঝিনুক মাশরুম চাষ করতে মুলত প্রায় আড়াই তিন মাস সময় লাগে।ট্রেনিং শেষে প্রত্যেক মহিলাকে ৬টি স্পন(২০০ গ্রাম মাশরুম বীজের ৬টি প্যাকেট)দেওয়া হবে যাতে করে আর্থিক ভাবে উপকৃত হবে। মঠেরদিঘী পল্লী সেবা সদনের খোকন মন্ডল জানান বর্তমানে ২৫ জন মহিলা মাশরুম চাষের প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন।
সঙ্গীতা ঘোষ,বাণী প্রমাণিক,পূর্ণিমা প্রামানিক,সুপ্রিয়া দাস রা জানালেন আমরা এই ট্রেনিং নিয়ে চাষ করে স্বনির্ভর হতে চাই। কৃষি বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা রত্না সরদার জানান “এক প্যাকেট(স্পন)ঝিনুক মাশরুম চাষ করতে ১৭ টাকা খরচ হয় । আর বাজারে বিক্রি হবে ১২০/১৫০টাকা। ফলে স্বাভাবিক ভাবেই মহিলারা অর্থনৈতিক ভাবে সাবলম্বী হয়ে উঠবেন।