শনিবার, ১৫ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

“রোহিঙ্গাদের পুরোপুরিভাবে নাগরিকত্বের অধিকার প্রদান”

News Sundarban.com :
ডিসেম্বর ২৬, ২০১৭
news-image

চীন, রাশিয়া ও আঞ্চলিক কয়েকটি দেশের বিরোধিতা সত্ত্বেও মুসলিম রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী বিরুদ্ধে সামরিক অভিযান বন্ধে মিয়ানমারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদ। একই সঙ্গে মিয়ানমারে জাতিসংঘের একজন বিশেষ দূত নিয়োগ দিতেও দেশটির প্রতি আহ্বান জানিয়েছে সাধারণ পরিষদ।

জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদ এ আহ্বান জানায় বলে বার্তা সংস্থা এএফপির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

এদিন অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কো-অপারেশন (ওআইসি) উত্থাপিত এ সংক্রান্ত প্রস্তাব জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে গৃহীত হয়। প্রস্তাবটির পক্ষে ভোট পড়ে ১২২ ভোট। বিপক্ষে ভোট পড়ে ১০টি। আর ভোট দানে বিরত থাকে ২৪টি দেশ।

চীন ও রাশিয়া ছাড়াও কম্বোডিয়া, লাওস, ফিলিপাইন, ভিয়েতনাম, মিয়ানমার, বেলারুশ, সিরিয়া ও জিম্বাবুয়ে প্রস্তাবটির বিপক্ষে ভোট দেয়।

ওই প্রস্তাবে মিয়ানমারে মানবিক সহায়তাকর্মীদের প্রবেশের অনুমতি দিতে দেশটির সরকারের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে। একই সঙ্গে সব শরণার্থীদের সেখানে নিরাপদে ফিরে আসার নিশ্চিত করার পাশাপাশি রোহিঙ্গাদের পুরোপুরিভাবে নাগরিকত্বের অধিকার প্রদানের কথা বলা হয়েছে।

এছাড়া মিয়ানমারে একজন বিশেষ দূত নিয়োগ প্রদানে জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেসের প্রতি অনুরোধ জানানো হয়েছে প্রস্তাবে।

প্রসঙ্গত, গত ২৫ আগস্ট থেকে রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গাদের ওপর নিরাপত্তা অভিযানের নামে মিয়ানমার সেনাবাহিনী নৃশংসতা শুরু করে। এ অভিযানকে এরই মধ্যে জাতিসংঘ এবং যুক্তরাষ্ট্র জাতিগত নিধনযজ্ঞ বলে অভিহিত করেছে, যা আন্তর্জাতিক আইনে মানবাধিকার বিরোধী অপরাধ।

ওই অভিযান শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত প্রায় সাড়ে ৬ লাখের মতো রোহিঙ্গা প্রাণ বাঁচাতে রাখাইন থেকে বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে। এ ছাড়া আগে থেকেই পাঁচ লাখের বেশি রোহিঙ্গা কক্সবাজারে অবস্থান করছে। এতে মোট রোহিঙ্গা সংখ্যা সাড়ে ১১ লাখ ছাড়িয়েছে।

রাখাইনে শত শত বছর ধরে বসবাস করে এলেও রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে নিজেদের নাগরিক মনে করে না মিয়ানমার।