সোমবার, ২৬শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

মুকুল রায়কে নিয়ে এখনও দ্বিধা কাটল না বিজেপির

News Sundarban.com :
অক্টোবর ৩০, ২০১৭
news-image

মুকুল রায়কে নিয়ে এখনও দ্বিধা কাটল না বিজেপির । যদিও রবিবার মুকুল রায়ের অনুগামীদের কাছে খবর,গতকাল বিজেপি-র সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের সঙ্গে কৈলাশ বিজয়বর্গীয়-র প্রায় ৩ ঘন্টা বৈঠিক হয়েছে । সেখানে কৈলাশ অমিত শাহকে পশিমবঙ্গের পরিস্থিতি বুঝিয়ে বলেন । মুকুল রায়কে দলে নিলে কি কি সুবিধা , কি বা অসুবিধা তার ব্যাখ্যা দেন দলীয় সভাপতিকে । কথা ছিল মুকুল বেলা চারটেয় ১১ নম্বর অশোক রোডে বি জে পি অফিসে যাবেন । বিকেল ৫ টা নাগাদ বি জে পি –তে যোগ দেবেন । কিন্তু হঠাত ফোন করে কৈলাশ বিজয় বর্গীয় জানান, আজ নয় অন্য কোনো দিন । এরপর মুকুল রায় আর সাউথ আয়াভিনুয়ের বাড়ি থেকে বের হন নি । সারাদিন অনুধ্ ১৭-র বিশ্বকাপ ফুটবল খেলা দেখেন । রাত ১০ টা নাগাদ অমিত শাহ মুকুল রায়কে ফোন করেন । বলেন, ‘বাহাত্তর ঘন্টার মধ্যে আপনার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হয়ে যাবে । নিশ্চিন্ত থাকুন’ ।
যদিও, শনিবারের ওই বৈঠক শেষে কৈলাশ বিজয়বর্গীয় বলেন, ‘গুজরাট ও হিমাচল প্রদেশের ভোটই আমাদের অগ্রাধিকার। পশ্চিমবঙ্গ নয়’।
এদিন মুকুলকে নিয়ে দিল্লিতে বৈঠকে বসেছিলেন অমিত শাহ ও বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয় । দীর্ঘ আলোচনার পরও চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে পৌঁছতে পারেননি অমিত । তাই আপাতত স্থগিত মুকুলের যোগদান ।
তবে মুকুলের বিজেপিতে যোগদান যে সহজ হবে না তার ইঙ্গিত মিলেছিল শুক্রবারই । সেদিন এরাজ্যে আর এস এস-এর নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে বসেছিল পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য বি জেপি নেতৃত্ব । সূত্রের খবর, ওই বৈঠকে মুকুলকে নিয়ে আপত্তি তোলেন সঙ্ঘের নেতারা । রাজ্য বি জে পি নেতৃত্বের একাংশেরও মুকুলে অনীহা জানান । মুকুলকে নিতে আগ্রহী নেতারা মনে করছেন, তৃণমূলের একদা ‘সেকেন্ড ইন কম্যান্ড’কে দলে নেওয়া হলে সংগঠন মজবুত হবে । বিরুদ্ধ অংশের মতে, মুকুলকে দলে নেওয়া হলে দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই দুর্বল হয়ে পড়বে । সারদা-নারদ নিয়ে শাসক দলের বিরুদ্ধে সুর চড়ানো যাবে না । একই কারণে আপত্তি আর এস এস-এর । ফলে, তিতি বিরক্ত মুকুল রায়ও। তিনি চাইছেন, বিজেপি যা সিদ্ধান্ত নেওয়ার জানিয়ে দিক । এদিকে মুকুল রায়কে নিয়ে রাজ্য থেকে কেন্দ্রীয় নেতারা নানা সময়ে নানা কথা বলছেন । তাঁদের কথাতেই নিত্য নতুন জল্পনা তৈরি হচ্ছে ।