বৃহস্পতিবার, ৩০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

কলকাতার রাস্তার ধারের হোটেলে খাবার তৈরিতে কেজিতে মিলেছে ৩.৭৮-৪৩.৩৫ মিলিগ্রাম লেড বা সীসা

News Sundarban.com :
অক্টোবর ২৮, ২০১৭
news-image

কলকাতার রাস্তার ধারের হোটেলে খাবার তৈরিতে ব্যবহৃত কাঁচামালে প্রতি কেজিতে ৩.৭৮-৪৩.৩৫ মিলিগ্রাম লেড বা সীসা পাওয়া গিয়েছে। আর পরীক্ষার জন্য এ রকম যত রান্নার সরঞ্জাম সংগ্রহ করা হয়েছিল, তাতে প্রতি কেজিতে গড়ে ২৩.৫৬ মিলিগ্রাম সীসা মিলেছে। কিন্তু ভারতে ফুড সেফটি অ্যান্ড স্ট্যান্ডার্ড রেগুলেশনে বলা আছে, প্রতি কেজিতে সীসার পরিমাণ কোনওভাবেই ২.৫ মিলিগ্রামের বেশি থাকা উচিত নয়। জিওলজিক্যাল সার্ভে অব ইন্ডিয়ার (জিএসআই) সমীক্ষা রিপোর্টে এই আশঙ্কার কথাই শোনা গেল।
কলকাতা শহরে অফিসপাড়ায় কিংবা জনবহুল এলাকায় রাস্তার ধারের হোটেল বা দোকান থেকে খাবার কিনে খাওয়ার ছবি নতুন কিছু নয়। নিত্য খাটাখাটনির মাঝে একফাঁকে এই খাবার খান হাজার হাজার মানুষ। কিন্তু যা খাচ্ছেন, সেটা কি আদৌ নিরাপদ? রাস্তার ধারে সাজিয়ে রাখা কাটা ফল খাওয়া উচিত নয়— স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের পক্ষ থেকে এই পরামর্শ বহুবার দেওয়া হয়েছে। এবার রাস্তার ধারের অন্যান্য খাবারও নিরাপদ নয় বলেই রিপোর্ট প্রকাশ করেছে জিএসআই।
তাদের সমীক্ষা রিপোর্ট অনুযায়ী, কলকাতার বিভিন্ন প্রান্তে রাস্তার ধারের হোটেলে রান্নায় যে কাঁচামাল ব্যবহৃত হয়, তাতে প্রচুর পরিমাণে সীসা পাওয়া গিয়েছে। যা অত্যধিক পরিমাণে মানুষের শরীরে গেলে কিডনি, লিভার থেকে রক্তের বিভিন্ন সমস্যা আরও বাড়িয়ে দেবে। বিশেষ করে শিশুদের বিপদ বেশি। জিএসআই রিপোর্টে বলা হয়েছে, অত্যধিক সীসা শরীরে গেলে শিশুদের মগজে বিরূপ প্রভাব পড়তে পারে। শারীরিক ব্যবস্থাতে প্রচুর ক্ষতি করে,যা ঠিক হওয়া সম্ভব নয় বলেই অভিমত দেওয়া হয়েছে সমীক্ষা রিপোর্টে।