শুক্রবার, ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

নাইলন রশি দিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষার্থীর

News Sundarban.com :
সেপ্টেম্বর ২৩, ২০১৭
news-image

শরৎ নামে ১৯ বছর বয়সী কলেজ শিক্ষার্থী নিজের মুক্তিপণের জন্য ৫০ লাখ চেয়ে তার বাবা-মায়ের কাছে হোয়াটসঅ্যাপে ভিডিও বার্তা পাঠান। এর কয়েক দিন পর শুক্রবার সকালে ভারতের বেঙ্গালুরে একটি লেকের পাশ থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

এ ঘটনার সঙ্গে সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে শরতের সবচেয়ে প্রিয় বন্ধুসহ মোট ছয়জনকে আটক করেছে পুলিশ। নিহত শরৎ অটোমোবাইল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দ্বিতীয়বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন।

পুলিশ জানায়, শরতের বাবা একজন জ্যেষ্ঠ আয়কর কর্মকর্তা। শরৎ গত ১২ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে তার নতুন মোটরবাইক চালানোর সময় অপহরণ হন। তার সবচেয়ে প্রিয়বন্ধু বিশাল এ সময় তার সঙ্গে ছিল। ওই বন্ধুই তাকে অপহরণ করে।

খবরে বলা হয়, ওইদিন সন্ধ্যা গড়িয়ে গেলে শরৎ বাসায় না ফেরায় তার বাবা-মা উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন এবং পরে স্থানীয় পুলিশকে এ বিষয়ে অভিযোগ করেন। পরবর্তীতে তার বাবা-মা একটি হোয়াটসঅ্যাপ ভিডিও বার্তা পান। সেই বার্তায় শরৎ তার বাবা-মাকে তার অপহরণের বিষয়টি জানান এবং অপহরকারীরা তার কাছে ৫০ লাখ রুপি মুক্তিপণ চেয়েছে সেই কথা বলেন। তিনি অপহরকারীদের নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন বলেও কাতর কণ্ঠে বাবা-মাকে জানান। এরপর দ্বিতীয় ভিডিও বার্তায় শরতের বড় বোনকে অপহরণের হুমকি দেয় অপহরণকারী।

মোবাইলের কল লিস্টের রেকর্ডের ভিত্তিতে পুলিশ জানায়, বিশাল ও তার সহযোগীরা শরৎকে হত্যা করেছে। তাকে নাইলন রশি দিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর লেকের পাশে ফেলে রাখা হয়। সূত্র: এনডিটিভি