মঙ্গলবার, ১১ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

আন্তর্জাতিক ওয়ানডেতেও হ্যাটট্রিক কুলদীপের

News Sundarban.com :
সেপ্টেম্বর ২২, ২০১৭
news-image

ইনিংসের ৩২তম ওভার পর্যন্ত পার্শ্বচরিত্র হিসেবে ঘুরে ফিরছিলেন কুলদীপ যাদব। ৩৩তম ওভারে হঠাৎ সব বদলে গেল। ওভারের দ্বিতীয় বলে প্রথমে বোল্ড হলেন ম্যাথু ওয়েড। পরের বলে লেগ স্পিনে এলবিডব্লিউ হলেন অ্যাশটন অ্যাগার। চতুর্থ বলটা খেলতে নামলেন প্যাট কামিন্স। দীর্ঘদেহী পেসারকে বিভ্রান্ত করতে এবার ‘রং ওয়ান’-এর আশ্রয় নিলেন বাঁহাতি লেগ স্পিনার। সে বল ব্যাট ছুঁয়ে চলে গেল ধোনির কাছে।

দ্বিতীয় ওয়ানডেতেও হেরেছে অস্ট্রেলিয়া। এবারের ব্যবধান ৫০ রানের। মাত্র ২৫৩ রানের লক্ষ্যেই রীতিমতো খাবি খেয়েছে সফরকারীরা। কিন্তু ম্যাচ–পরবর্তী আলোচনায় সেসব কোনো গুরুত্ব পাচ্ছে না। এই প্রথম কোনো চায়নাম্যান বোলার হ্যাটট্রিক করলেন ওয়ানডেতে। এরপর কি আর অস্ট্রেলিয়ার হারের কথা কারও মাথায় থাকে!
মজার ব্যাপার হলো, ৩৩তম ওভারের আগেও খুব সাধারণ একটা দিন যাচ্ছিল কুলদীপের। অন্য প্রান্তে দুর্দান্ত বল করছিলেন যুজবেন্দ্র চাহাল। আর ৭ ওভারে ৩৯ রান দিয়েও কোনো উইকেট নেই যাদবের। কিন্তু তিন বলেই সব বদলে দিলেন। এক ঝটকায় ম্যাচের ফল নিয়ে সব অনিশ্চয়তা দূর করে দিলেন। সঙ্গে গড়লেন ইতিহাস। জয় থেকে ১০৫ রান দূরে থাকা অস্ট্রেলিয়া মুহূর্তেই ১৪৮/৫ থেকে ১৪৮/৮-এ পরিণত হলো।
এই এক হ্যাটট্রিকেই আরও দুটি হ্যাটট্রিক হলো। এটি ছিল ইডেন গার্ডেনের তৃতীয় হ্যাটট্রিক। ১৯৯১ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ইডেনকে প্রথম তিন বলে তিন উইকেট দেখার সুযোগ করে দিয়েছিলেন কপিল দেব। এরপর ২০০১ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে হরভজনের সেই ম্যাচ ঘুরিয়ে দেওয়া হ্যাটট্রিক। এর ১৬ বছর পর আবারও হ্যাটট্রিক দেখল ইডেন। মজার ব্যাপার, এটা ওয়ানডেতেও ভারতের তৃতীয় হ্যাটট্রিক। কপিল ও কুলদীপের আগে এ কীর্তি ছিল চেতন শর্মার (১৯৮৭)।
তবে একটি বিষয়ে অনন্য কুলদীপ। এই চায়নাম্যানই একমাত্র ব্যক্তি, যিনি অনূর্ধ্ব-১৯ ওয়ানডের পর আন্তর্জাতিক ওয়ানডেতেও হ্যাটট্রিক করলেন।
কুলদীপের হ্যাটট্রিকের আগে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে জয়ের আশা দেখছিল অস্ট্রেলিয়া। বিরাট কোহলির ৯২ ও অজিঙ্কা রাহানের ৫৫ রানের দুর্দান্ত সূচনা কাজে লাগাতে পারেনি ভারত। ইনিংসের শেষ বলে অলআউট হওয়ার আগে করেছিল ২৫২ রান। সে লক্ষ্যে স্টিভ স্মিথ (৫৯) ও ট্রাভিস হেড (৩৯) দলকে নিয়ে গিয়েছিল ভালো অবস্থানে। কিন্তু পঞ্চম ব্যাটসম্যান হিসেবে ১৩৮ রানে স্মিথ আউট হয়ে যেতেই স্বপ্ন ফিকে হয়ে যেতে থাকে অস্ট্রেলিয়ার।
কুলদীপের হ্যাটট্রিকের পরও অসম্ভব এক লড়াইয়ে নেমেছিলেন মার্কাস স্টয়নিচ। কিন্তু তাঁর ৬৫ বলে ৬২ রানের সে ইনিংস শুধু ব্যবধানই কমিয়েছে। আর এ জয়ে ওয়ানডে র‍্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষে চলে এসেছে ভারত।