সোমবার, ২৬শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শিরোপা জেতার কথা নাকি তিনি ভুলেই গিয়েছিলেন : রাফায়েল নাদাল

News Sundarban.com :
সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৭
news-image

রাফায়েল নাদাল নিজেও বিশ্বাস করতে পারছেন না। এক বছরে দু’টি গ্র্যান্ড স্লাম শিরোপা জেতার কথা নাকি তিনি ভুলেই গিয়েছিলেন। কিন্তু ২০১৭ সালে সেটাই হলো। বছরের প্রথম গ্র্যান্ড স্লাম টুর্নামেন্ট অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ফাইনালে উঠেছিলেন তিনি। কিন্তু রজার ফেদেরারের কাছে হেরে যান। তবে এরপর ফ্রেঞ্চ ওপেনে নিজের দশম শিরোপা জেতেন নাদাল। উইম্বলডনে খুব একটা যুত করতে পারেননি। কিন্তু বছরের শেষ গ্র্যান্ড স্লাম টুর্নামেন্ট ইউএস ওপেনে বাজিমাত করলেন স্পেনের এ টেনিস তারকা। ফাইনালে দক্ষিণ আফ্রিকার কেভিন অ্যান্ডারসনকে ৬-৩, ৬-৩, ৬-৪ গেমে হারিয়ে শিরোপা জিতলেন তিনি। ইউএস ওপেনে এটি তার তৃতীয় শিরোপা। ফ্ল্যাশিং মিডোসে এর আগে ২০১০ ও ২০১৩ সালে শিরোপা জেতেন তিনি। আর মোট মিলিয়ে এটি তার ১৬তম গ্র্যান্ড স্লাম শিরোপা। এরমধ্যে ফ্রেঞ্চ ওপেনে সর্বোচ্চ ১০, অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে ১, উইম্বলডনে ২ ও ইউএস ওপেনে ৩ শিরোপা। বছর দুয়েক আগেও মনে করা হচ্ছিল, নাদালের ক্যারিয়ার শেষ হয়ে গেছে। ২০১৫ ও ২০১৬ সালে কোনো গ্র্যান্ড সøাম শিরোপা জিততে পারেননি তিনি। কিন্তু ২০১৭ সালে এসে পূনর্জন্ম হলো ৩১ বছর বয়সী নাদালের। ঠিক যেভাবে পূনর্জন্ম হয়েছে টেনিসের আরেক তারকা রজার ফেদেরারের। এ বছরের চার গ্র্যান্ড সøাম শিরোপা ফেদেরার ও নাদাল সমান সমান ভাগ করে নিয়েছেন। সুইস তারকা ফেদেরার অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের পর উইম্বলডনের শিরোপা জেতেন। আর নাদাল জিতলেন ফ্রেঞ্চ ওপেন ও ইউএস ওপেনের শিরোপা।
দক্ষিণ আফ্রিকার কেভিন অ্যান্ডারসনের এটা ছিল প্রথম গ্র্যান্ড স্লাম ফাইনাল। র‌্যাঙ্কিংয়ে তার অবস্থান ৩২। নাদালের বিপক্ষে এর আগে তার চার ম্যাচেই ছিল হার। অন্যদিকে নাদাল এখন র‌্যাঙ্কিংয়ের এক নম্বর তারকা। ইউএস ওপেনের আগে এ বছর দুই গ্র্যান্ড স্লামের ফাইনালে উঠে এক শিরোপা জেতেন। এতে ফ্ল্যাশিং মিডোসে স্পষ্ট ফেভারিট ছিলেন নাদাল। কোর্টের লড়াইয়েও সেটা প্রমাণিত হয়। প্রতিপক্ষ কেভিন অ্যান্ডারসনকে তিনি উড়িয়ে দিয়েছেন। শিরোপা জয়ের পর নাদাল বলেন, ‘এ বছর যা ঘটলো তা সত্যিই অবিশ্বাস্য। ইনজুরি ও নানা ঝামেলার কারণে দুই বছর আমি আলোচনার বাইরে ছিলাম। ভাল খেলতে পারিনি। তবে সবকিছু মিটিয়ে এ বছর কোর্টে ফেরার পর আমি আবেগি ছিলাম। খুবই আবেগি ছিলাম। এ বছর যা হলো তা নিয়ে আমি অনেক খুশি। আবারো এই শিরোপা জিততে পারলাম। খেলার প্রতি এখনো আমার মধ্যে সমান আগ্রহ ও ভালবাসা রয়েছে। এখনো কোর্টে লড়াই করতে চাই। বিষয়টি আমাকে আনন্দ দেয়।’ বন্ধু রজার ফেদেরারকেও ভোলেননি নাদাল। এই বছরটা তারও ভালো গেছে উল্লেখ করে নাদাল বলেন, ‘এ বছরটা রজারও খুব ভাল করেছে। তারও দারুণ একটি মৌসুমে কেটেছে। আমাদের দু’জনেরই দারুণ একটি বছর গেলো।’